মে’য়েদের যে জায়গাটিতে স্পর্শ করলেই উ’ত্তেজনায় পা’গল হয়ে নি’য়ন্ত্রণ হা’রিয়ে ফে’লে – সপ্তাহের শনিবার না’রীরা বিছানায় নি’য়ন্ত্রণহা’রিয়ে ফে’লেন বলে দাবি করা হয়েছে সদ্য প্রকাশিত এক গবে’ষণায়।

আড়াই হাজারেরও বেশি না’রীর উপর জরিপ চা’লিয়ে এ ত’থ্য দিয়েছে হেলথ এন্ড বিউটি রিটেইলার ’সুপার’ড্রাগ’। জরিপের ফলাফলে বলা হয়, বেশিরভাগ না’রীরই সপ্তাহের অন্তত: একটি রাতে যৌ’ন চেতনা তীব্রতর হয়।

আর সে রাতটি হলো শনিবার রাত।জরিপ ফলাফলে আরো বলা হয়, নিজেদের আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য না’রীরা একাধিক পন্থা অবলম্বন করেন। এক্ষেত্রে উষ্ণ পানিতে গোসল তাদের বিশেষ পছন্দ। পছন্দের প্রথমে রয়েছে বডি স্প্রে’র ব্যবহার। তবে চুলের স্টাইল এবং মুখের হাসির প্রতিও তারা

এ রাতে মেয়েদের শ’রীরে এমন কিছু জায়গা আছে যেখানে স্পর্শ করলে মেয়েরা অনেক বেশি ’টার্ন অনহয়ে পড়ে। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই ছেলেরা সেইসব অংশের দিকে নজর দেয় না। ফোরপ্লে সীমাবদ্ধ থাকে ব্রেস্ট, নিপলস আর কিসের মধ্যেই। তারপরেই ইন্টারকোর্স।

২. কান: কানে হালকা স্পর্শ, চু’ম্বন অনেক বেশি সে’ক্সুয়ালি অ্যাট্রাক্টেড করে দেয় মেয়েদের। কানের উপর আস্তে আস্তে নিঃশ্বাস ফেললে পা’গল হয়ে পড়বে আপনার স’ঙ্গিনী। হালকা কামড় দিতে পারেন কানের লতিতে। লিক করতে পারেন কানের চার পাশে যে কোন জায়গায়। কিন্তু কানের ছিদ্রে নয়, এটি মেয়েদের জন্যে একটা টার্ন অফ।

৩. উরু বা থাই: মে’য়েদের দ্রু’ত উ’ত্তেজিত করত তিন নম্বরটির পয়েন্টটির জুড়ি মেলা ভার। স’ঙ্গিনীর উরুর সফট স্পটে স্পর্শ করুন। দেখবেন সে কি করে।

৪. হাতের তালু ও পায়ের পাতা: হাত দিয়ে প্রতি মুহূর্ত স্পর্শ করছেন, কিন্তু তার হাতেই যে লুকিয়ে আছে অসংখ্য সে’ক্সুয়াল ফিলিংস। স’ঙ্গিনীর হাতের উপর নিজের আঙুলগু’লি বোলাতে থাকুন, সুড়সুড়ি দিন। এটিই যেন তাঁকে পরবর্তী সে’ক্সুয়াল অ্যাক্টিভিটিরই মেসেজ দেবে। দেখবেন সেও সাড়া দেবে। টার্ন অন করবে আপনার স’ঙ্গিনীকে।

৫. পিঠ: পিঠ, বিশেষ করে পিঠের নিচে, কোম’রের দিকের অংশটাতে স্পর্শ ও আদর চায় মেয়েরা। মেরুদন্ড বরাবর চুমু দিতে দিতে নিচে নেমে যান। তাঁর সে’ক্স করার মুড আরও বাড়বেই।একটু বেশি যত্নশীল হন। এ প্রস’ঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ’সুপার’ড্রাগ -এর সারা বোলওয়ারসন বলেন, ’আমরা একটি ভোটের ব্যবস্থা করেছিলাম।

সেই ভোটের ফলের ভিত্তিতে আমরা জরিপটি চালাই। তাতে দেখা গিয়েছে, নিজেদেরকে আকর্ষণীয় দেখাতে কী কী করতে হবে, সেটা না’রীরাই সবথেকে ভালো বোঝেন। কিন্তু সাধারণত না’রীরা সর্বদা সে সব করেন না। সপ্তাহে যে কোনো একটি বিশেষ দিনে তাঁরা সেই সব পন্থা নেন। এবং সেটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শনিবার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here