মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজে’লার আপরকাঠি গ্রামের বিল্লাল দেওয়ানের স্ত্রী মারুফা বেগম (২৮)। বুকে ব্য’থা তাই ডাক্তার দেখাতে যাচ্ছিলেন ঢাকাতে।তিন বছরের ছেলে আবু তালহাকে নিয়ে দুলাভাই শামীম ব্যাপারীর স’ঙ্গে মুন্সীগঞ্জ থেকে ঢাকায় ডাক্তার দেখাতে যাচ্ছিলেন লঞ্চে করে।

কিন্তু ডাক্তার আর দেখানো হল না তার।সোমবার রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকা সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবির ঘ’টনায় তাদের মৃ’ত্যু হয়।

সোমবার রাত পৌনে ৮টার দিকে মারুফা এবং ছেলে আবু তালহাকে টঙ্গীবাড়ী উপজে’লার আড়িয়ল কবরস্থানে দাফন করা হয়। দুলাভাই শামীম ব্যাপারীর বাড়ি সদর উপজে’লার সিপাহীপাড়া এলাকায়। তাকে ওই এলাকায় দাফন করা হয়।

দ্বিতীয় স্বা’মী রেখে বিয়ের দাবিতে প্রে’মিকের বাড়ি প্রে’মিকার অ’নশন

রাজিব হোসেন এর বাড়িতে গিয়ে বিয়ের দাবি করেন এবং সেখানেই সারারাত না খেয়ে অ’নশন শুরু করেন। প্রে’মিকা বাড়িতে আসার সাথে সাথে ওই বিডিআর সদস্য বাড়ি থেকে পা’লিয়ে যান।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে পু’লিশ ওই বাড়িতে গিয়ে প্রমিকাকে বামনায় থানায় নিয়ে আসেন। সেখানে বিভিন্ন প্রকার জি’জ্ঞাসাবাদ শেষে ২২ ঘণ্টা পরে পু’লিশ কৌশলে তাকে তাঁর পরিবারের কাছে তুলে দেয়।

বিয়ের দাবি নিয়ে প্রে’মিকের বাড়িতে অ’নশন করা ওই না’রী বলেন, আমার সাথে দীর্ঘদিন রাজিব প্রেমের সম্প’র্ক চা’লিয়ে যাচ্ছে। আমার অন্য এক ছেলের সাথে বিবাহ হলেও সে সেখান থেকে আমাকে চলে আসতে বলে।

আমি সেখানে একদিনও ঘর সংসার করিনি। পরে আমার পরিবার আবার আমাকে দ্বিতীয় বিয়ে দেয়। সেখানেও রাজিব আমার বি’ষয়ে বিভিন্ন প্রকার কথা বলে আমার সংসার ভে’ঙে দেয়। মাত্র ১৬দিন আমি

শেষের স্বা’মীর ঘর করতে পারি। এর পর থেকে সে আমার সাথে ফোনে ও সরাসরি বিয়ের প্রস্তাব দেয়। আমি রাজি হই। তবে আজ নয় কাল বলে সে আমাকে ঘুরাতে থাকে।

পরে যখন আমি জানতে পারি রাজিব গো’পনে একটি মে’য়েকে বিয়ে করতে যাচ্ছে তথন আমি প্রেমের দাবী নিয়ে তার বাড়িতে এসে উঠি। ওর কারণে আমার দুটো সংসার ভে’ঙে গেছে। অথচ এখন সে আমাকে বিয়ে করতে চায় না। আমি এর বিচার

চাই। আমি তার সংসার করতে চাই।বিডিআর সদস্য রাজিব হোসেন খানের বাবা মজিবর খান বলেন, মে’য়েটির কয়েকবার বিয়ে হয়েছে। আমার ছেলে যেহেতু একটি ভালো চাকরি করে তাই তাকে ফাঁ’সাতে চায় এই মে’য়েটি।

আমরা কিছুতেই এ মে’য়ের সাথে ছেলেকে বিয়ে দিবো না।এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন জানান, মে’য়েটি ছেলে বাড়িতে এলে ছেলের পক্ষের লোকজন পু’লিশকে ম্যানেজ করে

ওই মে’য়েটিকে তার ন্যায্য দাবি থেকে সরে আসতে বা’ধ্য করেছে।বামনা থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস আলী তালুকদার বলেন, মে’য়ের মা গত সোমবার রাতে একটি অভিযোগ দিয়েছে। যেহেতু মে’য়েটির প্রে’মিক বর্তমানে প’লাতক তাই তাকে খুঁজে পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিবো। আপাদত মে’য়েটিকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here