নিজস্ব প্রতিনিধি, লন্ডন: হংকংয়ের জাতীয় নিরাপত্তা আইন নিয়ে এবার চিনের স’ঙ্গে ব্রিটেনের সঙ্ঘাতের পারদ তুঙ্গে পৌঁছল। হংকংয়ের ৩০ লাখ বাসিন্দাকে নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

আর সোমবার লন্ডনের মাটিতে দাঁড়িয়েই ব্রিটেনকে হংকং নিয়ে নাক না গ’লানোর হুঁ’শিয়ারি দিয়েছেন চিনের রাষ্ট্রদূত লিও জিয়াওমিং। তাঁর সাফ কথা, ‘হংকংয়ের বাসিন্দাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলে আসলে নাক গ’লানোর চেষ্টা করছে ব্রিটেন।

এমন আচরণ থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি। না হলে পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে ভাবতে হবে।’ শুধু হংকং নিয়ে নয়, ব্রিটেনে ৫ জি পরিষেবা নিয়ে চিনা সংস্থা হুয়েইয়ের বরাত বাতিল নিয়েও হুঁ’শিয়ারি দিয়েছেন চিনের রাষ্ট্রদূত।

আন্তর্জাতিক চা’পকে উপেক্ষা করেই হংকংয়ের জন্য জাতীয় নিরাপত্তা আইন পাশ করেছে চিনের শি চিনফিং স’রকার। ওই আইনের ফলে হংকংয়ের বাসিন্দাদের স্বাধীনতার অধিকার কার্যত কেড়ে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

কেননা, ওই চুক্তিতে বলা হয়েছিল, ভূখণ্ডটি হস্তান্তরের পরবর্তী ৫০ বছরের মধ্যে সেখানকার নির্দিষ্ট কিছু গণতান্ত্রিক স্বাধীনতায় কোনও হস্তক্ষেপ করবে না চিন। অথচ নয়া নিরাপত্তা আইন চালু করে হংকংয়ের বাসিন্দাদের গণতান্ত্রিক অধিকারে হস্তক্ষেপ করছে বেজিং।’

যদিও ব্রিটিশ স’রকারের দাবিকে ফু‍ৎকারে উড়িয়ে দিয়েছেন লন্ডনে নিযুক্ত চিনের রাষ্ট্রদূত লিউ জিয়াওমিং। তাঁর কথায়, ‘আমাদের অধিকার কতটা তা আমরা জানি। আমরা যখন নিজের অধিকারের সীমা ল’ঙ্ঘন করিনি,

তেমনই ব্রিটেনেরও উচিত নয় হংকং নিয়ে অযথা নাক গ’লানো কিংবা অশান্তিতে ইন্ধ’ন জোগানো। হংকংয়ের বাসিন্দাদের নাগরিকত্ব দেওয়া নিয়ে যে প্রস্তাব দিয়েছে ব্রিটেন, তা পুনর্বিবেচনা করবে বলে আশা করছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here