সারা পৃথিবীতেই লড়াই চলছে ম’হামা’রী ক’রোনার বি’রুদ্ধে। ক’রোনা সং’ক্র’মণ রুখতে পৃথিবীর প্রায় সমস্ত দেশই লকডাউনের ঘোষণা করেছে। ফলে পৃথিবী জুড়ে অর্থনৈতিক কাজকর্ম প্রায় থমকে গেছে।

তাই সব দেশই নিজের মতো করে লড়াই করে বাঁচতে চেষ্টা করছে অর্থনৈতিক সং’কট থেকে। তেমনই পরিকল্পনা নিয়েছে কুয়েত।

রবিবার কুয়েত স’রকার ড্রাফট্‌ এক্সপ্যাট কোটা বিল বা খসড়া আনুপাতিক সংরক্ষণ বিলে অনুমোদন দিয়েছে। বিলে বলা হয়েছে, কুয়েতে বসবাসকারী ভারতীয়দের সংখ্যা কখনওই দেশের মোট জনসংখ্যার ১৫ শতাংশের বেশি যেন না হয়।

এই বিল অনুমোদিত হলে কুয়েতে কর্মসূত্রে রয়েছেন এমন কমপক্ষে সাত লক্ষ ভারতীয় বা’ধ্য হবেন কুয়েত ছাড়তে। কুয়েতে রয়েছেন ১৪.‌৫ লক্ষ ভারতীয়। ফলে এই বিল অনুমোদিত হয়ে গেলেই ওই ১৪.‌৫ লক্ষের মধ্যে সাত লক্ষ ভারতীয়কে কুয়েত ছাড়তেই হবে। এই সব ভারতীয়রা কেউ কুয়েতের বিভিন্ন হোটেলে কাজ করেন।

এবার সেই রাস্তাও বন্ধ হতে চলেছে। একদিকে আমেরিকা এইচওয়ানবি ভিসা বন্ধ করে দেওয়ার ফলে নতুন করে ভারতীয়রা আর সেখানে গিয়ে কাজ করতে পারবেন না।

এবার যদি কুয়েত থেকে বিতাড়িত হতে হয়, তাহলে ভারতে এসে পড়বে আরও শ্রমশ’ক্তি। তাদের চাকরি কোথায় হবে? এ নিয়ে নতুন সং’কটে পড়তে যাচ্ছে মোদি স’রকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here