পিরিওডের র’ক্তক্ষরণ শুরু হওয়ার দিন থেকে প্রথম সাত দিন ও শেষ সাত দিন স’হবাস করলে গ’র্ভধারণের সম্ভাবনা কম থাকে। তাই ওই সময়কে স’হবাসের নিরাপদ সময় হিসেবে ধরা হয়।

তবে এই শর্ত কেবল সেই সকল না’রীদের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য যাদের পিরিওড নি’য়মিত ২৮ দিন (বা নি’য়মিত ২৬ থেকে ৩১ দিন) অন্তর অন্তর হয়। এদের ক্ষেত্রে র’ক্তস্রাব শুরু হওয়ার দিনকে প্রথম দিন ধরে গুণতে থাকলে মো’টামুটি ১২ থেকে ১৯ তম দিনে ডিম্বাণু নির্গমণ হয়।

পিরিওডের বাকি দিনগুলো, প্রথম থেকে সপ্তম ও ২১ তম দিন থেকে পুনরায় রজস্রাব শুরু হওয়ার দিন পর্যন্ত মি’লনের নিরাপদ সময় হিসেবে গন্য করা হয়। মনে রাখবেন যে র’ক্তক্ষরণ শুরু হবার দিনকে প্রথম দিন ধরেই কিন্তু উপরোক্ত হিসেব দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখযোগ্য যে পিরিওডের কোন দিনই প্রকৃত নিরাপদ দিন নয়। উপরিউল্লিখিত নিরাপদ সময়ে মি’লন করলেও গ’র্ভধারণের স্বল্প হলেও কিছুটা সম্ভাবনা থেকেই যায়। কাজেই অপর কোন জ’ন্ম নিয়ন্ত্রণের উপায়,

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হৃদরো’গীরা ক’রোনা ভাই’রাসে সবচেয়ে বেশি ঝূঁকিপূর্ণ। ট্রান্সফ্যাটযুক্ত খাবার হৃদরো’গের অন্যতম প্রধান কারণ। বাংলাদেশে প্রতিবছর ২ লক্ষ ৭৭ হাজার মানুষ হৃদরো’গে মা’রা যায়, যা অত্যন্ত উ’দ্বেগজনক।

ট্রান্সফ্যাটযুক্ত খাবারের কারণে স্ট্রোক এবং টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আ’ক্রান্ত হওয়ার ঝুঁ’কিও বৃ’দ্ধি পায়। উচ্চমাত্রায় ট্রান্সফ্যাট গ্রহণের কারণে সার্বিকভাবে মৃ’ত্যুঝুঁ’কি ৩৪ শতাংশ পর্যন্ত বৃ’দ্ধি পায়। এছাড়া হৃদরো’গে আ’ক্রান্ত হওয়ার ঝুঁ’কি ২১ শতাংশ এবং হৃদরো’গজনিত মৃ’ত্যুঝুঁ’কি ২৮ শতাংশ পর্যন্ত বৃ’দ্ধি পায়।

অন্যদিকে, লকডাউনের কারণে ঘরে ব’ন্দি থাকায় মানুষের শা’রীরিক কর্মকাণ্ড অনেকটাই কমেছে। তাই রো’গ প্রতিরোধ ক্ষ’মতা বাড়াতে ট্রান্সফ্যাটযুক্ত খাবার এড়িয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণের উপর জো’র দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

খাদ্য প্রস্ততকারক প্রতিষ্ঠানগুলো খাবার সংরক্ষণের সুবিধার্থে এবং বিভিন্ন ভাজা পোড়া ও বেকারি পণ্যের স্বাদ, ঘ্রাণ এবং স্থায়িত্ব বাড়ানোর জন্য আংশিক হাইড্রোজেনেটেড তেল ব্যবহার করে থাকে। এছাড়া ভাজা পোড়া খাদ্যে একই ভোজ্য তেল উচ্চ তাপমাত্রায় বারবার ব্যবহারের কারণেও খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট সৃষ্টি হয়। সাধারণত খরচ কমানোর জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁয় সিঙ্গারা, সমুচা, পুরি, জিলাপি, চিকেন ফ্রাইসহ বিভিন্ন ধরনের ভাজা পোড়া খাবার তৈরির সময় একই তেল বারবার ব্যবহার করা হয়। এ কারণে এসব খাবারে ট্রান্সফ্যাটের পরিমাণ বেড়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here