আমরা কমবেশি সকলে জীবনে কখনো না কখনো নিজের জানতে বা অজান্তেই প্রেমে পড়েছি। স্কুলের ছাত্র সময়ে হোক বা কলেজে এসে। প্রেম সম্প’র্কে কমবেশি সবাই আসে, কিন্তু শুরুর দিকে সম্প’র্ক টিকিয়ে রাখা সহজ হয়না। ব্যাক্তিগত কারণ হোক বা পারিবারিক শুরুতে সবার কমবেশি সবার মধ্যেই প্রেম টিকিয়ে রাখা কঠিন হয়ে যায়।

প্রেম টিকিয়ে রাখার ব্যাপারে জানতে হলে আমাদের প্রেম কিভাবে হয় তা জানে জরুরী। প্রেম ভালোবাসা এমন এক সম্প’র্ক যা কখনো আমাদের চাওয়া বা না চাওয়ার ও’পর নির্ভর করে না।

কখনো যদি আমরা কারোর প্রতি আকৃ’ষ্ট হয় এর মানে এটা নয় তার সাথে প্রেম ভালোবাসা সম্প’র্ক হয়েছে। আবার অনেক সময় সামনের জনের সাথে আলাপ না হয়েই আমরা তার প্রেমে পড়ে যায়। সবটা আমাদের হৃদয়ের খেলা। সেখানে কখন কি চলে আমাদের পক্ষে বোঝা সহজ নয়।

প্রেম ভালোবাসা মূ’লত দুই ধরণের হয়ে থাকে, একরকম যেটা স্বল্প সময়ের জন্য। মজা মস্তি আ’নন্দের জন্য। আর একরকম হয় যেটা দীর্ঘদিনের জন্য এমনকি অনেক সময় এই সম্প’র্ক বিয়ের পিঁড়িতেও পৌঁছে যায়।

২. ভালোবাসার মানুষকে সম্মান দিন:
মে’য়েদের কাছে টাকার থেকে সম্মানটা অনেক দামি। তারা চায় তার বয়ফ্রেন্ড তাকে সম্মান করুক। মে’য়েরা ছেলেদের কাছে সম্মান পেতে চায়। আপনি তাকে সম্মান করুন দেখু’ন আপনাদের প্রেম সম্প’র্ক আরো মজবুত হবে আরো মধুর হবে। শত বা’ধা আসলেও সে আপনাকে আঁকড়ে থাকবে।

৩. কখনো বিশ্বাস ভাঙবেন না:
সময় এবং সম্মান এর পর গুরুত্বপূর্ণ যদি কিছু থাকে সেটি হল বিশ্বাস। কথায় আছে বিশ্বাসে পুরো দুনিয়া চলে। তাই এমন কিছু করে বসবেন না যাতে অপনার স’ঙ্গী বা স’ঙ্গিনীর আপনার উপর থেকে বিশ্বাস হা’রিয়ে যায়। প্রয়োজনে তাকে সত্যি বলুন, কিছু সময়ের জন্য আপনাকে ছেড়ে থাকলেও পরে আবার আপনার কাছেই ফিরে আসবে। আর বিশ্বাস এমন একটা জিনিস যা একবার হারালে তা পুনরায় অর্জন করতে অনেক সময় লেগে যায়।

৪. মাঝে মাঝে সাথে ঘুরতে যাওয়া ও উপহার দেওয়া:
প্রেম শুধু কলেজ বা টিউশনে সীমাবদ্ধ থাকলে তা পরিণতি পায় না। সম্প’র্ক দীর্ঘ সময় টিকিয়ে রাখতে তাকে আলাদা করে সময় দিন। তার সাথে আলাদা ভাবে সময় কা’টান। যেখানে দুজন দুজনের ব্যাপারে আরো একটু বেশি করে জানতে পারবেন। সুযোগ হলে কোথাও ঘুরতে যেতে পারেন।

নিজের স’ঙ্গী বা স’ঙ্গিনীকে খুশি করতে মাঝে মাঝে উপহার প্রদান করুন। উপহার মানে টাকা নয়। আসল উপহারের কোনো মূ’ল্য হয় না, যেখানে টাকা কম অনুভূতি বেশি থাকে। আপনার ক্ষ’মতা মত আপনি মন থেকে প্রিয়জনকে উপহার দিন। এতে আপনার উপর তারা ভরসা আরো বেড়ে যাবে। আপনি যে তার জন্য কতটা ভাবেন এটা সে উপলব্ধি করতে পারবে।

আশা করছি উপরে বর্ণিত কিছু উপায় আপনাদের কাজে আসবে। এই বি’ষয়ে আপনাদের কোনো মন্তব্য থাকলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানান। আমরা আপনাদের কমেন্ট পেয়ে খুশি হব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here