ক’রোনাভা’ইরাসেের প্রাদুর্ভাবে সমগ্র বিশ্বে অনেকেই তাদের জীবিকা হা’রিয়েছেন। এই প্রাদুর্ভাব থেকে রক্ষা পায়নি পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত ও। আর এর ফলাফলস্বরূপ দেশটিতে সবজি বিক্রি করছেন পিএইচডি করা এক না’রী।

ঘ’টনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে। সম্প্রতি ফল বিক্রী করতে করতে ওই না’রীর সাবলীলভাবে ইংরেজী বলার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

জানা গেছে রায়সা আন্সারি নামের ওই না’রী পদার্থবিদ্যায় মাস্টার অফ সায়েন্স করেছেন এবং পরবর্তীতে ২০১১ সালে দেবী অহিল্যা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিদ্যায় পিএইচডি করেছেন।

সবজি বিক্রি করার বি’ষয়ে তিনি বলেন, তাঁর বাবা, দাদু সহ ৬ থেকে ৭ প্রজ’ন্ম বাজারে সবজি বিক্রি করার কাজ করেছে। আর ক’রোনার কারণে তিনি এবং তাঁর বন্ধুরাও বর্তমানে সবজি বিক্রি করতে বা’ধ্য হয়েছেন।

নাটোরের গুরুদাসপুরে প্রতিপক্ষের দেয়া বি’ষে ৫ বিঘার একটি পুকুরের সব মাছ ম’রে ভেসে উঠেছে। এ ঘ’টনায় প্রায় ১৬ লাখ টাকার মাছ ম’রে গেছে বলে জানায় ক্ষ’তিগ্রস্তরা।

বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে উপজে’লার চা’পিলা ইউনিয়নের খামারপাথুরিয়া গ্রামে এই ঘ’টনা ঘটেছে।

এ ঘ’টনায় পুকুর মালিক আব্দুল মান্নান বা’দী হয়ে প্রতিপক্ষ একই এলাকার মোহাম্ম’দ আলী বিশুর ৬ ছেলে, মোজাহিদ, রউফ, আব্দুল হাই, শফিকুল, সাইদুল, মোমিনসহ ১১ জনের নামে গুরুদাসপুর থানায় একটি এজাহার দা’য়ের করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, খামার পাথুরিয়া গ্রামের মৃ’ত সায়েত আলীর ছেলে আব্দুল মান্নান তার নিজস্ব ৫ বিঘার একটি পুকুরে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রুই, কাতলা, সিলভার, ব্রিগেট, টেংড়া, কালবাউশ এবং দেশি পুঁটিসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের চাষ করে আসছেন। মাছগুলো কিছুদিন পরেই তিনি বিক্রি করতেন।

গতকাল রাত ৩টার দিকে পুকুরে বি’ষ প্রয়োগের ফলে সকালে সব মাছ ম’রে ভেসে ওঠে। ক্ষ’তিগ্রস্ত আব্দুল মান্নান জানান, রাত ৩টার দিকে অ’ভিযুক্তরা দলবেঁ’ধে এসে বি’ষপ্রয়োগ করতে থাকে।

এ সময় তার পুকুর পাহারাদার নি’ষেধ করলে তাদের প্রা’ণে মে’রে ফেলার হু’মকি দিলে জীবনের ভ’য়ে তারা চুপ থাকে। পরে পুকুরে বি’ষপ্রয়োগ করে খু’ন জ’খমের ভ’য়ভীতি দেখিয়ে তারা চলে যায়। এমন বড় ধরনের ক্ষ’তিতে তিনি হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

এ বি’ষয়ে অ’ভিযুক্ত মোজাহিদ ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, বি’ষ প্রয়োগে মাছ নিধ’নের বি’ষয়ে আমরা কিছু জানিনা। এমন ধরনের কাজ আমরা করিনি। প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে আমাদের নামে মা’মলা দা’য়ের করেছে প্রতিপক্ষরা।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা মোজাহারুল ইসলাম বলেন, বি’ষপ্রয়োগে মাছ নিধ’নের বি’ষয়ে এজাহার পেয়েছি। বি’ষয়টি খতিয়ে দেখে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here