সাধারণত ২৪ বা ২৫ বছর ব’য়সী মে’য়েরা কিছু উদ্ভট অজুহাত দেখিয়ে বিয়ে করতে চান না। কিন্তু বাবা-মা জো’র করে হলেও এই সময়টাতে মে’য়েদের বিয়ে দিতে চান। আবার অনেক মে’য়ে স্বাধীনতা খর্ব হবে ভাবনায় বিয়ে করতে চান না।

তবে মে’য়েরা বিয়ে না করার জন্য যেসব অজুহাত দেন সেগুলো খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ নয়।এ কারণে তারা বিয়ে বন্ধ করতে ব্যর্থ হয়। আপনি যদি এখনই বিয়ে করতে না চান, তাহলে অন্তত আইডিভা ওয়েবসাইটে দেওয়া এই অজুহাতগুলো দেবেন না।

১. আমি আরো পড়তে চাই। গ্র্যাজুয়েশন শেষ হওয়ার পর নিশ্চয়ই আপনার এই অজুহাত কেউ মানতে চাইবে না।

২. আমি পড়ার জন্য দেশের বাইরে যেতে চাই। এখন বিয়ে নিয়ে ভাবছি না। মে’য়েদের তাঁর বাবা-মা একা দেশের বাইরে পাঠাতে রাজি হন না। তাই এই অজুহাত না দেখানোই ভালো।

কারণ ক্যারিয়ারে শেষ বলতে কোনো কথা নেই। প্রতি মুহূর্তেই ভালো কিছু করার জন্য চেষ্টা করতে হয়। তাই এই অজুহাত দেখিয়ে কোনো লাভ নেই।

৪. বিয়ে আমার জন্য না। এই কথা বলে কখনোই বিয়ে বন্ধ করতে পারবেন না। তাই এমন কথা না বলাই ভালো।

৫. আগে আমি আমার ওজন কমিয়ে নিই, তারপর বিয়ের কথা ভাবব। এই উদ্ভট অজুহাতের কোনো মানে আছে বলুন?

৬. আমি রান্না করতে পারি না। আগে রান্না শিখব তারপর বিয়ে করব। বিয়ের পর অনেক কিছুই নতুন করে শিখতে হয়। তাই এতদিন যেহেতু রান্না শেখেননি।

এখন আর শেখার প্রয়োজন নেই। রান্না করতে করতে এমনিতেই শিখে যাবেন। এটা বাবা-মাও ভালো বোঝেন। তাই তাঁদের সামনে এমন অজুহাত দেখিয়ে কোনো লাভ নেই।

৭. আমার অনেক টাকা জমাতে হবে, তারপর বিয়ের কথা ভাবব। মে’য়েদের এই কথা কেউই মেনে নেবে না। তাই এই অজুহাত দেখানোর কোনো প্রয়োজন নেই।

৮. আমি এখন আমার বাবা-মাকে ছেড়ে যেতে পারব না। মে’য়েরা কোনোদিনও তার বাবা-মাকে ছেড়ে যেতে চায় না। তাই এখন আর পরে বলে কোনো কথা নেই।

৯. ভাইয়া তো এখনো বিয়ে করেনি। আগে সে বিয়ে করুক, তারপর করব। ছেলেরা একটু দেরিতে বিয়ে করে এটাই স্বাভাবিক। তাই ভাইয়ের বিয়ের অজুহাত দেখিয়ে কোনো লাভ নেই।

১০. আম্মু তোমার বিয়েও তো ২৮ বছর ব’য়সে হয়েছে। আমাকে এত তাড়াতাড়ি বিয়ে দিতে চাচ্ছো কেন? মায়ের স’ঙ্গে নিজের তুলনা করে কোনো লাভ নেই। ভালো প্রস্তাব পেলে মা মে’য়ের বিয়ে দিতে কখনোই দেরি করতে চান না। এএসএমওয়াই

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here