সাবেক সে’না কর্মকর্তা মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হ’ত্যা মা’মলায় গ্রে’প্তার সাত পু’লিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। আজ শুক্রবার তাদের ব’রখাস্ত করা হয় বলে জানা গেছে।

বরখাস্ত হওয়া সাত পু’লিশ সদস্য হলেন টেকনাফ থানার প্রত্যাহার হওয়া ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ, সিনহাকে গু’লি করা পু’লিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী, কনস্টেবল সাফানুর করিম, উপপরিদর্শক নন্দ দুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন এবং সহকারী উপপরিদর্শক লিটন মিয়া।

পু’লিশ সদর দপ্তরের সহকারী পু’লিশ মহাপরিদর্শক সোহেল রানা প্রথম আলোকে বলেন, আজ এই সাত পু’লিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এই সাত পু’লিশ সদস্যের নাম উল্লেখ করে গত বুধবার মা’মলা করেন সিনহা রাশেদের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস।

এই সাত আ’সামি গতকাল বৃহস্পতিবার কক্সবাজার আ’দালতে আত্মসমর্পণ করেন। এর পর আ’দালত তাদের কা’রাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। পরে শারমিন ফেরদৌসের করা হ’ত্যা মা’মলার ত’দন্তকারী সংস্থা র‌্যা’বের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তিনজনকে

এ ঘ’টনার বিচার চেয়ে গতকাল বুধবার কক্সবাজার সিনিয়র জু’ডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতে মা’মলাটি করেন নি’হতের বড় বোন শারমিন।

আ’দালতের বিচারক তামান্না ফারাহ মা’মলাটি গ্রহণ করেন। তিনি এজাহারটি মা’মলা হিসেবে নথিভুক্ত করে সাত দিনের মধ্যে আ’দালতকে অবহিত করতে টেকনাফ থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

পাশাপাশি মা’মলাটি ত’দন্ত করে আ’দালতকে জানানোর জন্য র‌্যা’ব-১৫ কক্সবাজার ক্যাম্পের অধিনায়ককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here