গাজীপুরের কাশিমপুর কা’রাগার থেকে যাবজ্জীবন কা’রাদ’ণ্ডপ্রা’প্ত কয়েদি আবু বকর সিদ্দিক পা’লিয়ে যান। বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) সন্ধ্যায় লকআপের পর থেকে খুঁজে পাওয়া যায়নি তাকে।

১৮ ফুট উঁচু সীমানাদেয়াল টপকে পা’লিয়েছেন যাবজ্জীবন দ’ণ্ডপ্রা’প্ত ব’ন্দি আবু বকর সিদ্দিক। ক’ঠোর নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো কা’রাগারের দেয়াল টপকাতে তিনি মই ব্যবহার করেন বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

অথচ কা’রাগারটির চার কোনায় অনেক উঁচুতে স্থাপিত পর্যবেক্ষণ টাওয়ারে সর্বক্ষণ রয়েছে নিরাপত্তা প্রহরী। ভে’তরের উন্মুক্ত স্থানে কে কী করছে তা সহজেই চোখে পড়ে তাদের।

কিন্তু সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে বেরিয়ে গেছেন আবু বকর। বুধবার (১২ আগস্ট) পর্যন্ত তাকে খুঁজে পায়নি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বা কারা কর্তৃপক্ষ।

তখন তিনি সেল এলাকায় সেপটিক ট্যাংকের ভে’তরে লুকিয়ে ছিলেন। পরদিন তাকে সেই ট্যাংকের ভে’তর থেকে উ’দ্ধার করা হয়েছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ত’দন্ত কমিটি ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা থেকে বকরের পা’লিয়ে যাওয়ার পুরো চিত্র পেয়েছে। এরই মধ্যে দায়িত্বে অবহেলার কারণে ১২ জন কারারক্ষীর বি’রুদ্ধে শা’স্তিমূ’লক ব্যবস্থা নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

কারা সূত্র জানায়, কা’রাগারের ভে’তরে বিভিন্ন কাজ করার জন্য ল্যাডার (মই) রয়েছে। আবু বকর সেই মই দিয়ে অনেকবার বিদ্যুতের কাজ করেছেন। ঘ’টনার দিন দুপুরের পর তিনি মইটি নিয়ে অনেকের চোখের সামনে দিয়েই সীমানাপ্রাচীরের দিকে যান।

তখন তিনি কোনো কাজে যাচ্ছেন ভেবে কেউ কিছু বলেনি। তাকে পাহারাও দেননি কোনো কারারক্ষী। এই সুযোগে মই লাগিয়ে সহজেই তিনি উঠে যান দেয়ালের ও’পর। পরে লাফ দিয়ে বাইরের দিকে নেমে পা’লিয়েও যান। সন্ধ্যায় লক-আপ করার সময় বি’ষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here