স’ন্তানের অ’পারেশনের জন্য ভি’ক্ষা করে যোগাড় করা পঞ্চাশ হাজার টাকা আ’ত্মসাতের অ’ভিযোগ উ’ঠেছে খুলনা মে’ডিকেলের এক চি’কিৎসকের বি’রুদ্ধে। শুধু তাই নয়, ব’দলীর পরও রংপুর মে’ডিকেলের বা’র্ন ই’উনিটের বি’ভাগীয় প্র’ধান প’রিচয় ব্যবহার করে নিজের ক’র্মস্থল খুলনা থেকে রংপুরে এসে অ’পারেশন করছেন অ’ভিযুক্ত ডা. মারুফুল ই’সলাম। এদিকে টাকার অভাবে থেমে আছে মোরসালিনের অ’পারেশন।

মোরসালিনের প’রিবারের স’দস্যরা জানায়, গেলো বছরের ২৬ ডিসেম্বর অ’সাবধানতাবশত রংপুর নগরীর চিলমোনে নিজ বাড়িতে দ’গ্ধ হয় সাত বছরের মোরসালিন। এরপর তাকে রংপুর মে’ডিকেলের বা’র্ন ই’উনিটে নেয়া হলে তাকে ঢাকা মেডিকেলে রেফার্ড করা হয়।

সেখানে দীর্ঘদিন চি’কিৎসার পর তার শ’রীরের পো’ড়া ক্ষ’ত সা’রলেও থুতনির চা’মড়ার সাথে বু’কের চা’মড়া লেগে থাকায় মোরসালিনের চলাফেরায় ক’ষ্ট হ’চ্ছিলো। স্বাভাবিক জী’বনে ফেরার জন্য অ’পারেশনের প্রয়োজনে তার বাবা-মা স’ম্প্রতি রংপুরে ডা. মারুফুল ইসলামের দ্বারস্থ হন।

মোরসালিনের মা ও বোনের অ’ভিযোগ, অ’পারেশনের জন্য প্রথমে এক লক্ষ টাকা দা’বী করলেও আশি হাজার টাকায় রাজী হন ডা. মারুফুল। শেষ পর্যন্ত শি’শুটির দিনমজুর বাবা মা’নুষের কাছে ভি’ক্ষা করে পঞ্চাশ হাজার টাকা ডা. মারুফুলের হা’তে তু’লে দেন।

পরে তারা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে যোগাযোগ করলে কর্তব্যরত চি’কিৎসকরা জানান, মোরসালিনের অ’পারেশনের জন্য ও’ষুধ ছা’ড়া আর কোন টাকা খরচ হবে না। পরে তারা মোরসালিনকে মেডিকেলের বা’র্ন ইউনিটে ভর্তি করেন।

পরে মোরসালিনের প’রিবারের স’দস্যরা ডা. মারুফুলের কাছে টাকা ফেরত চাইলে তিনি জানান, বাকি ত্রিশ হাজার টাকা আনলে তিনি মোরসালিনের অ’পারেশন করাবেন।

কিন্তু টাকা ফেরত দিতে পারবেন না। এ বি’ষয়ে মোরসালিনের প্রতিবেশী ফটো সাংবাদিক আদর রহমান ডা. মারুফুলকে ফোন করলে তিনি আদর রহমানকে আ’পত্তিকর কথা বলে ফোন রেখে দেন। এদিকে টাকার অ’ভাবে মোরসালিনের অ’পারেশন করাতে পারছেন না তার দ’রিদ্র বাবা-মা।

ডা. মারুফুল ইসলাম মোবাইলে সময় সংবাদের কাছে টাকা নেয়ার বি’ষয়টি স্বী’কার করলেও নানা রকম অসামঞ্জস্য কথাবার্তা বলেন। তিনি বলেন, যারা টাকা দিয়েছে তাদের পাঠান।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে খুলনায় বদলীর পরও তিনি ব্যবস্থাপত্রে কেন রংপুর মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটের প্রধান হিসেবে পরিচয় দিচ্ছেন এবং খুলনা থেকে রংপুর এসে কেন চি’কিৎসা দিচ্ছেন তার কোন উত্তর না দিয়ে ব্যস্ততার কথা বলে ফোন কে’টে দেন।

গতকাল শনিবারও ডা. মোরসালিন রংপুরের ধাপে ফাস্ট কিওর স্পেশালাইজড হাসপাতালে অ’পারেশন করেছেন বলে জানান হাসপাতালের ম্যানেজার ডাবলু। ডা. মারুফুল আর রংপুর মেডিকেলে ক’র্মরত নন। এর বাইরে কিছুই বলতে রাজী হ’ননি মেডিকেলের পরিচালক ডা. ফরিদুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here