মা’র্কিন প্রে’সিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রা’ম্প বলেছেন, ইরানের পক্ষ থেকে কোনো ধরণের হা’মলা চা’লানো হলে, তার জবাব হবে এক হাজার গুণ বেশি শ’ক্তিশালী।

তেহরানকে এমন হুঁ’শিয়ারি দেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের স্থাপনা লক্ষ্য করে ইরান হা’মলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলেও দাবি করেন ট্রা’ম্প। তবে ইরান বলছে, নির্বাচন সামনে রেখেই লোক দেখানো কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন প্রে’সিডেন্ট ট্রা’ম্প।

সম্প্রতি কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ হরমুজ প্রণালীতে বার্ষিক সা’মরিক মহড়া শেষ করে ইরান। এতে ক্ষে’পণাস্ত্র পরীক্ষাসহ বিভিন্ন ধরণের যু’দ্ধ কৌশল প্রদর্শন করে মধ্যপ্রাচ্যের এই পরাশ’ক্তি। যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরাইলকে ইঙ্গিত করে, শ’ত্রুকে মো’কাবিলায় সব সর্বাত্মক প্রস্তুতির কথাও জানায় দেশটি।

এর কয়েকদিন পরই মা’র্কিন প্রে’সিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রা’ম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থাপনায় হা’মলা চালাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে ইরান। সমরবিদ জেনারেল কাশেম সোলাইমানির হ’ত্যার প্র’তিশোধ নিতেই তেহরান এমনটা করছে বলে দাবি ট্রা’ম্পের। একইস’ঙ্গে তিনি হু’মকি দিয়ে বলেন, কোন মা’র্কিন স্থাপনা আ’ক্রান্ত হলে ইরানকে ছেড়ে দেবে না যুক্তরাষ্ট্র।

বিদ্যালয়ে কর্মরত ১৯ জন শিক্ষক ও ১১ জন কর্মচারী এ অ’ভিযোগ তুলেছেন। প্রধান শিক্ষকের এমন কাণ্ডে হতবাক তারা।

বিদ্যালয়ে কর্মরত নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা জানান, ক’রোনাকালীন সময়ে ক্ষ’তিগ্রস্ত নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া অনুদানে নন-এমপিও ১৯ জন শিক্ষক জনপ্রতি পেয়েছেন পাঁচ হাজার টাকার চেক আর ১১ জন কর্মচারীরা পেয়েছেন আড়াই হাজার টাকার চেক।

চলতি বছরের ১২ জুলাই জনতা ব্যাংক আশেকপুর শাখা টাঙ্গাইল থেকে অনুদানের ওই চেক পান তারা। তবে বিদ্যালয়ের জুলাই মাসে পাওয়া জুনের বেতন থেকে সেই অনুদানের সমপরিমাণ টাকা আবার কে’টে নেওয়া হয়।

তারা আরও জানান, বেতন থেকে ওই টাকা কে’টে নেওয়ার বি’ষয়ে কয়েকজন শিক্ষক প্রধান শিক্ষককে ফোন দিয়ে জানতে পারেন বিদ্যালয় থেকে তাদের নিয়মিত বেতন দেয়া হয়, তাই তাদের প্রা’প্ত অনুদানের টাকা’টা কে’টে রাখা হয়েছে।

এ বি’ষয়ে বিদ্যালয়ে হিসাবরক্ষক কাম কম্পিউটার অপারেটর মো.রুবেল মিয়া বলেন, ‘প্রধান শিক্ষকের নির্দেশে নন-এমপিও ১৯ জন শিক্ষক আর ১১ জন কর্মচারীকে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা বেতন থেকে কে’টে রাখা হয়েছে।’

এ প্রস’ঙ্গে টাঙ্গাইল পু’লিশ লাইনস্ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্ম’দ আব্দুল কাদের বলেন, ‘ক’রোনাকালীন সময়ে বেতন পাচ্ছেন না এমন নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য প্রধানমন্ত্রী মানবিক এই অনুদান দিয়েছেন। আমাদের সকল নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারী বিদ্যালয় থেকে নিয়মিত বেতন পাচ্ছেন, এ কারণে বেতন থেকে তাদের ওই অনুদানের টাকা কে’টে রাখা হয়েছে।’

নিয়মিত বেতন পাওয়া স্বত্তেও নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের তালিকা কেন পাঠানো হয়েছিল এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘কোন কারণ না জানিয়ে বোর্ড থেকে নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের তালিকা চাওয়া হয়েছিল বলেই তালিকাটি পাঠানো হয়। এছাড়াও নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন থেকে কে’টে রাখা অনুদানের টাকা বিদ্যালয় ফান্ডে জমা রাখা হয়েছে।’

জানা যায়, ১৯৯৬ সালে স্থাপিত টাঙ্গাইল পু’লিশ লাইনস্ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়। বর্তমানে দুই সিফটে চলমান ও ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণীর এ বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থী সংখ্যা ১৭৮৫ জন আর শিক্ষক-কর্মচারীর সংখ্যা ৪৯ জন। এর মধ্যে নন-এমপিও রয়েছেন ১৯ জন শিক্ষক আর ১১ জন কর্মচারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here