আবারও কমেছে সোনার দর। দেশের বাজারে টানা দরপতনের দিকে আছে সোনা। চলতি মাসের শুরুতে কিছুটা বাড়তির দিকে থাকলেও গত মাসেই মূ’লত কমা শুরু হয় মূ’ল্য।

ম’হামা’রী ক’রোনা ভাই’রাসের কারনে গোটা বিশ্বের অর্থনীতির টালমাটাল অবস্থা থাকার কারনে সেখান থেকে বেরিয়ে আসতেই দাম চড়ে সোনার। গত জুলাই মাসে রেকর্ড পরিমাণ মূ’ল্য বৃ’দ্ধির পর আবার কমছে দাম।

গত রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম ধরা হয় ১৯৪০.৪৩ ডলার। এর আগের দিন ১২ সেপ্টেম্বর থেকে এদিন মূ’ল্য হ্রাস পায় এক ডলার।

অন্যদিকে ৯ সেপ্টেম্বর প্রতি আউন্স সোনার দাম আন্তর্জাতিক বাজারে ছিল ১৯৪৬.৫৬ ডলার। এরপর থেকেই টানা কমতির দিকে থাকে সোনার মূ’ল্য। আন্তর্জাতিক বাজারের এই দরপতনের প্রভাব দেশের বাজারে পড়তে অবশ্য আরও বেশ কিছুদিন সময় লাগতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

তবে আগের মূ’ল্যে আবারও ফেরত যাবে কিনা সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত করে কিছুই বলা যাচ্ছে না বলেও জানিয়েছেন বাজার বিশ্লেষকরা।

প্রস’ঙ্গত, ক’রোনা ভাই’রাসের কারনে বিশ্বের অর্থনৈতিক ক্ষ’তি কাটিয়ে উঠতেই মূ’লত বেড়ে যায় সোনার মূ’ল্য। ক’রোনার শুরুর দিকে অর্থাৎ, মার্চের দিকে কিছুটা কমতির দিকে থাকলেও পরবর্তী দুই মাস পর বেড়ে যায় মূ’ল্য। যার প্রভাব পড়েছিল দেশের বাজারেও।

প্রতি ভরি সোনার দাম প্রায় ৮০ হাজার টাকার কাছাকাছি গিয়ে ঠেকছিল দেশের বাজারে। সোনার এই মূ’ল্য বৃ’দ্ধির পর ধীরে ধীরে আবারও কমতে শুরু করেছে এই দাম।

ক’রোনার আগে যেখানে যেখেনে দেশের বাজারে প্রতি ভরি সোনার মূ’ল্য ছিল ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকার মধ্যে সেখানে বর্তমানে প্রতি ভরি সোনা বিক্রি হচ্ছে প্রায় ৭০ হাজার টাকার কাছাকাছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here