ব’য়স ৩৬ হলেও এখনো জাতীয় দলের হয়ে একবার হলেও খেলার স্বপ্ন দেখেন বাংলাদেশের ক্রিকে’টের সুপারস্টার মোহাম্ম’দ আশরাফুল। সেজন্য নিজের পরিশ্রম করে যাচ্ছেন নিয়মিত। কিন্তু দলে সুযোগ কিংবা সুযোগের সম্ভাবনা কোনটাই দেখা যাচ্ছেনা।

প্রায় ৭-৮ মাসের বিরতি কাটিয়ে টাইগাররা ক্রিকে’টে ফিরতে পারে শ্রীলঙ্কা সফর দিয়ে। আর এই সফরের প্রাথমিক দলেও জায়গা হয়নি আশরাফুলের।

লঙ্কানদের বিপক্ষে সবচেয়ে সফল হওয়াতেও সুযোগ না পেয়ে হতাশ হয়েছেন টাইগার সাবেক এই অধিনায়ক। এর জন্য অবশ্য দেশের ক্রিকে’টের কালচারকেই দায়ী করেছেন তিনি।

নিজের অফিশিয়াল ফেইসবুক পেজ থেকে বৃহস্পতিবার ভক্তদের স’ঙ্গে লাইভ প্রশ্নোত্তর পর্বে যুক্ত হয়েছিলেন আশরাফুল। সেখানেই শ্রীলঙ্কা সিরিজ নিয়ে একপর্যায়ে আক্ষেপ ঝড়ে আশরাফুলের কণ্ঠে,

ফিক্সিং কে’লেঙ্কারিতে জড়িয়ে সব ধরনের ক্রিকে’টে নি’ষিদ্ধ হতে হয়েছিল আশরাফুলকে। নি’ষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আশরাফুল আবার ফেরার স্বপ্ন দেখেন শুধু নিজের জন্য তা নয়। মানুষের ভালোবাসার প্রতিদান দেওয়ার তাড়না তার মধ্যে।

‘আমি খুব ভাগ্যবান মনেকরি নিজেকে…। সাত বছর জাতীয় দলের বাইরে। তারপরও যেভাবে দেশে এবং দেশের বাইরে মানুষেরা আমাকে এখনো সাপোর্ট করে যাচ্ছেন, এটা আমি নিজেকে খুব ভাগ্যবান মনেকরি। সেই কারণেই এখনো আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি। ’-
বলছিলেন আশরাফুল।

ক’রোনাকালে বেশ কিছু দিন ঘরব’ন্দী থাকতে হয়েছে। বিরতি কাটিয়ে আশরাফুল ফি’টনেস এবং স্কিল ট্রেনিং করে যাচ্ছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়মিত যার ভিডিও শেয়ার করছেন ভক্তদের জন্য। তার সেই ভিডিওগুলোই বলে দেয় আশরাফুল আসলে কতটা ক’ঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

নিজের প্রতি নিজের বিশ্বাসটাও এখন বেড়েছে বলে জানান আশরাফুল, ‘২০১৯ এর নভেম্বরে আমার যে ফি’টনেস ছিল, আর এখন ২০২০ এর সেপ্টেম্বরে যে ফি’টনেস, আমি মনেকরি তিন-চার বছর সহজেই যে কোনো লেভেলে সার্ভিস দিতে পারব। যেহেতু আমি ব্যাটসম্যান। ’

‘হয়তো আগে আত্মবিশ্বাস ছিল যে একদিন খেলব, সবার আশা পূরণ করব। কিন্তু এখন আমার আত্মবিশ্বাস আরো বেশি। আমি মনেকরি এটা সম্ভব। এখন শুধু খেলার অপেক্ষা। ’

আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকে’টে ফেরার জন্য আশরাফুল তিন ফরম্যাটের মধ্যে টেস্টকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। কারণ হিসেবে বললেন, ‘আমার এখন প্রথম লক্ষ্য একটাই,

লঙ্গার ভার্সন দিয়ে যেন ঢুকতে পারি। কারণ ওই জায়গাটায় আমি মনে করি আপনি যদি ঢুকতে পারেন, তাহলে চা’পটা অনেক কম। ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিতে একটা চা’প থাকে,

তাড়া থাকবে রানের। টেস্ট ক্রিকে’টে কিন্তু সেই তাড়াটা থাকবে না। সেট হলে লম্বা ইনিংস খেলা সম্ভব। আমি যেন আমার অ’ভিজ্ঞতা দিয়ে ফিরতে পারি, সেটাই লক্ষ্য। ’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here