সারাদেশঃ বরিশালের বাকেরগঞ্জে ছয় বছরের শি’শুকে ধ’র্ষ’ণের অ’ভিযোগে গ্রে’প্তার হওয়া যশোর শি’শু উন্নয়ন কেন্দ্রের চার শি’শুকে কা’রাগারে পাঠানোর নির্দেশদাতা

সিনিয়র জু’ডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহ হাইকোর্টে উপস্থিত হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে আবেদন করেছেন।

আজ রোববার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে বি’ষয়টি শুনানির জন্য নির্ধারিত রয়েছে।

এর আগে ওই চার শি’শুকে কা’রাগারে পাঠানোর ঘটনায় তলবে হাইকোর্ট উপস্থিত হন বরিশালের সিনিয়র জু’ডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহ।

এর আগে ধ’র্ষ’ণ মা’মলায় ৪ শি’শুকে কা’রাগারে পাঠানোর ঘটনা নিয়ে প্রতিবেদন প্রচার করে একটি বেস’রকারি টেলিভিশন।

সেই প্রতিবেদন দেখে গত বৃহস্পতিবার রাতে বসে হাইকোর্ট। উচ্চ আ’দালতের নির্দেশে ওই রাতেই চার শি’শুকে মুক্তি দেওয়া হয়।

রাজধানীতে বিয়ের প্রলোভনে বাসায় ডেকে ৭ দিন ধরে তরুণীকে ধ’র্ষ’ণ

সারাদেশঃ রাজধানীর সবুজবাগে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে বাসায় ডেকে নিয়ে সাতদিন ধরে ধ’র্ষ’ণের অ’ভিযোগে থানায় মা’মলা হয়েছে।

এরপরই অ’ভিযান চা’লিয়ে সবুজ মিয়া (৩২) ও তার সহযোগী আব্দুস সামাদ (৩৫) নামের দুই আ’সামিকে গ্রে’প্তার করেছে পুলিশ।

আজ রোববার দুপুর ১২টার দিকে শা’রীরিক পরীক্ষার জন্য ওই তরুণীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সবুজবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিয়াজ উদ্দিন স’রকার বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ৬ মাস আগে ওই তরুণীর সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় সবুজ মিয়ার। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গত ৪ অক্টোবর সবুজ বিয়ের জন্য পূর্ব বাসাবোতে নিজের বাসায় ডেকে নেন ওই তরুণীকে। কিন্তু বিয়ে না করে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত সবুজ ওই তরুণীকে ধ’র্ষ’ণ করেন।

পরে উপায় না দেখে গতকাল শনিবার রাতে সবুজ মিয়া ও তার সহযোগী সামাদের নামে মা’মলা করেন ওই তরুণী।

এরপর রাতেই আ’সামিদের গ্রে’প্তার করা হয়। ধ’র্ষ’ণের শি’কার ওই তরুণী বর্তমানে হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি আছেন বলেও জানান সবুজবাগ থানার উপ-পরিদর্শক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here