নাটোরের গু’রুদাসপুর উপজে’লা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এক ব্যবসায়ীর স্ত্রী’’’র সাথে অ’বৈ’ধ মি’লনের সময় ধ’রা খাওয়ায় স্থা’নীয় জনতা ১০ লাখ টাকা কাবিনে তাদের বিয়ে দিয়েছেন।

ঘ’টনাটি এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টির করেছে। ছাত্রলীগের এই নেতার নাম সুবাশীষ কবির সুবাস।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার দিকে গুরুদাসপুর পৌর সদরের চাঁচকৈড় বাজার পাড়া এলাকায় এ ঘ’টনা ঘ’টেছে।

জা’না যায়, ওই এলাকায় ফিড ব্যবসায়ী জনি রহমানের স্ত্রী’’’র সাথে দুই বছর ধ’রে পর’কী’’’য়া প্রে’ম চালিয়ে যাচ্ছিল ছাত্রলীগ নেতা সুবাস।

প্রে’মিক সুবাসের সম্মতিতে ১০ লাখ টাকা কাবিনে তাদের বিয়ের আয়োজন করেন এলাকাবাসী। স্থা’নীয় কাজী আব্দুল্লাহ তাদের বিয়ে পড়ানো সম্পন্ন করলে ওই রাতেই নতুন বৌকে নিয়ে নিজবাড়িতে চলে যান সুবাস।

জা’না যায়, বেশ কয়েকবছর আগে স্থা’নীয় ফিড ব্যবসায়ী জনি রহমানের সাথে কুষ্টিয়ার ওই নারীর পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

দীর্ঘদিনের সংসারে তাদের কোনো সন্তান নেই। স্বামী সারাদিন ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকার সুযোগে ২ বছর আগে থেকে ওই নারী সুবাসের সাথে পর’কী’’’য়ায় জড়িয়ে প’ড়ে।

এ নিষয়ে কথা বলতে উপজে’লা ছাত্রলীগ নেতা সুবাসের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলে ব’ন্ধ পাওয়া যায়।

নাটোর জে’লা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল মাসুম জা’নান, ছাত্রলীগ নেতা সুবাস পর’কী’’’য়া করে ধ’রা প’ড়ে বিয়ে করেছে বলে আমিও শুনেছি। তবে তার সাথে কথা হয়নি।

এই ঘ’টনা জা’নার সাথে সাথে জনি রহমান তার স্ত্রী’’’কে তালাক দিয়ে দেন। পরে ওই নারী ও তার পর’কী’’’য়া প্রে’মিক সুবাসের সম্মতিতে ১০ লাখ টাকা কাবিনে তাদের বিয়ের আয়োজন করেন এলাকাবাসী।

নু’রদের নতুন দল ‘গণ অ’ধিকার প’রিষদ’

রাজনীতিঃ শিগগিরই আত্মপ্রকাশ করছে নুর-রা’শেদদের নতুন রা’জনৈতিক দল। ইতিমধ্যে প্রায় সকল প্র’স্তুতি স’ম্পন্ন হয়েছে। অপেক্ষা এখন আ’নুষ্ঠানিক ঘো’ষণার।

এর আগে বিভিন্ন সময় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর একাধিকবার রা’জনৈতিক দল গঠনের ঘো’ষণা দিয়েছেন।

এছাড়া ছাত্র অধিকার পরিষদের আদলে দেশে-বিদেশে বিভি’ন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষদের নিয়ে অধিকার পরিষদ গঠন করেছেন তারা।

ছাত্র অধিকার পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন জানান, আমাদের নতুন রাজনৈতিক উদ্যোগের নাম ‘গণ অধিকার পরিষদ’।

ইতিমধ্যে এই উদ্যোগে যুক্ত হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সাবেক আমলা, অভিজ্ঞ ও বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে দেশের গুণী ব্যক্তিরা।

রাশেদ বলেন, এটি মূলত: তারুণ্যনির্ভর রাজনৈতিক দল। তার মানে এই নয় যে, এই দলের সবাই বয়সে তরুণ,

বরং বয়স্ক হয়েও একজন তারুণ্যের বলে বলিয়ান হতে পারেন চিন্তায়, কর্মে, উদ্যোমে। এখানে প্রবীণ-নবীণরা মিলে একটি সুন্দর দেশ গড়ে তুলবে।
নাগরিক অধিকার নিশ্চিতে তারা কাজ করবেন।

ছাত্র অধিকার পরিষদের এই নেতা আরো বলেন, আপাতত: দল গঠনের উদ্যোগের নাম ‘গণ অধিকার পরিষদ’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here