অপহরণ করা হয়েছে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন দলের তিন প্রার্থীকে। পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যে থেকে তাদের অপহরণ করে

এর দায় স্বীকার করে নিয়েছে রাখাইনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মি। আরাকান আর্মির দাবি, ছাত্র বিক্ষোভের সময় আটকদের মুক্তি দিলেই তারা ওই তিন প্রার্থীকে ছেড়ে দেবে।

জানা গেছে, আগামী ৮ নভেম্বরের নির্বাচন উপলক্ষে প্রচারণা চালানোর সময় মিন অং, নি নি মে মিন্ট এবং চিট চিট চ নামের

তিন প্রার্থীকে গত সপ্তাহে অপহরণ করা হয়। তারা সবাই মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির প্রার্থী।

গত বছর থেকে অঞ্চলটিতে এই লড়াই তীব্র হয়েছে। আরাকান আর্মির অভিযোগ, এনএলডি সরকারের সেনাবাহিনী বেসামরিকদের ওপর সহিংসতা চালাচ্ছে।

পাসওয়ার্ড নয়, মুখ দেখেই টাকা দেবে ব্যাংক!

পাসওয়ার্ড মনে রাখা অনেকের জন্য বেশ ঝামেলাপূর্ণ কাজ। তবে পাসওয়ার্ড মনে রাখার সেই দিন যথাসম্ভব শেষ হয়ে এসেছে।

কারণ এখন থেকে মুখাবয়ব স্ক্যান করেই পাসওয়ার্ডের কাজ সারা যাবে। আর তাতেই হয়ে যাবে সব লেনদেন।

প্রবেশ করা যাবে বিভিন্ন অনলাইন অ্যাকাউন্টেও। ২০২১ সাল থেকে সিঙ্গাপুরে সরকারি ভাবে চালু হতে চলেছে এই ‘ফেশিয়াল ভেরিফিকেশন সিস্টেম’।

কীভাবে ব্যবহার হবে এই পদ্ধতি? জানা গেছে ব্যক্তির মুখমণ্ডলের একাধিক ছবি তোলা হবে। এর পর তার সম্পর্কে সরকারের কাছে থাকা অন্যান্য তথ্য যেমন, জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট কিংবা এমপ্লয়মেন্ট কার্ডের সঙ্গে তা যুক্ত করা হবে।

জাতীয় আইডি স্কিমের সঙ্গে এ পদ্ধতি যুক্ত করার পদক্ষেপে সিঙ্গাপুরই বিশ্বের প্রথম। সময়ের সঙ্গে প্রযুক্তির ব্যবহারের দিক থেকে আরও উন্নত হতেই এ পদক্ষেপ বলে জানানো হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে।

তবে সরকারি ভাবে এ পদ্ধতির ব্যবহারে নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ফাঁক তৈরি হতে পারে, এমন দাবিও তুলেছেন অনেকে।

বিমানবন্দরে যাত্রীদের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণের ক্ষেত্রে কিংবা অ্যাপ বা গুগলের মতো সংস্থার বিভিন্ন পরিষেবায় এই ফেশিয়াল ভেরিফিকেশন প্রযুক্তির ব্যবহার ইতোমধ্যেই বেশ প্রচলিত।

তবে ফোন খোলা বা টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে এই পদ্ধতির ব্যবহার আর জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে এর যোগ তৈরি করার মধ্যে বিস্তর ফারাক বলেই মত বিশেষজ্ঞদের একাংশের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here