বাজাজ পালসারের যে কয়টি মডেল গত দুই দশকে বাজারে এনেছে প্রায় সব কয়টিই বাইকপ্রেমীদের মন কেড়ে নিয়েছে।

সে সঙ্গে বিক্রিও হয়েছে ব্যাপক। এবার পালসার ১২৫-এর নতুন মডেল বাজারে আনল বাজাজ। যুক্ত হলো আরও নতুন নতুন অনেক ফিচার।

তার মধ্যে অন্যতম স্প্লিট সিট। সঙ্গে স্পোর্টিং মোটরসাইকেলের একাধিক ফিচার।বাজারের পালসার ২০০১ সাল থেকে মোটরসাইকেলপ্রেমীদের মন জয় করে আসছে।

এর অসাধারণ বিল্ড কোয়ালিটি, শক্তিশালী ইঞ্জিন এবং ভালো মাইলেজের জন্য পালসার সব বয়সীদের পছন্দ।

আগের ১২৫ মডেলের ডিস্ক ব্রেকের সঙ্গে এই মডেলের ফারাক বিস্তর। আগের ক্ষেত্রে ছিল ফ্রন্ট সিট ডিস্ক ব্রেক। এবারে তার বদলে থাকছে সিঙ্গেল সিট ডিস্ক ব্রেক।

অটোমোবাইল বিশেষজ্ঞদের মতে, সিঙ্গেল সিট ডিস্ক ব্রেকের সুবিধা হচ্ছে বালি-কাঁকড় বা ভিজে রাস্তায় ডিস্ক ব্রেক চাপলেও স্কিট করার সম্ভাবনা কম।

তাদের ভাষায় সিঙ্গেল সিট ডিস্ক ব্রেক চাকাকে মাটির সঙ্গে কামড়ে ধরে রাখতে সাহায্য করে।পালসার ১২৫ সিসির ড্রাম ব্রেকের পাশাপাশি সামনে রয়েছে ডিস্ক ব্রেক।

স্পিল্ট সিটের পালসার ১২৫-এর দাম পড়ছে ৯২ হাজার ৭৯৬ রুপি। দুর্গাপূজা উপলক্ষে এই বাইক বাজারে নিয়ে এসেছে। নিয়ন গ্রিন,

কালো-রুপালি ও কালো লালে পাওয়া যাবে পালসার ১২৫। অবশ্যই বিএস৬ বাইক। ১১.৬ বিএইচপি-এর সঙ্গে ৮,৫০০ আরপিএম ও পিক টর্কে ১০.৮

এনএম-এর সঙ্গে ৬,৫০০ আরপিএমের শক্তি উৎপাদন করে ছুটে যাবে বাইক। ৫- স্পিড গিয়ারবক্স রয়েছে। বাইকের ওজন প্রায় ১২৪ কেজি,

যা পালসারের যে কোনও মডেলের মধ্যে সর্বোচ্চ। অনেকেই বলেন, লম্বা রাস্তায় যেখানে বেশি গতিতে বাইক চালানো যায় সেখানে বেশি ওজন হলে সুবিধা।

এমনিতেই মহামারি করোনা আবহে অটোমোবাইলস শিল্প মন্দার মুখে পড়েছে। তবে আনলকের প্রথম পর্ব থেকেই ফের গাড়ি বিক্রি শুরু হয়েছে।

পর্যবেক্ষকদের মতে, সংক্রমণের কারণে এখন অনেকেই ট্রেন, বাস মেট্রোর মতো গণপরিবহন এড়িয়ে চলবেন।

মধ্যবিত্তরা মোটর সাইকেলকেই আগামী দিনে কর্মস্থলে যাওয়ার ক্ষেত্রে বাহন করে নেবেন। সেদিক থেকে দু’চাকা

যানের বিক্রি বাড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। ঠিক সেই সময়েই পালসার ১২৫-এর নতুন ফিচার যুক্ত মডেল আনল বাজাজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here