থানার এক এ’এসআইয়ের নেতৃত্বে চার পুলিশ যায় মা’দকের আ’সামি ধরতে। মোটরসাইকেল মহাসড়কের পাশে রেখে পায়ে হেঁটে অ’ভিযান চালাতে বিলের মাঝখানে যান।

কিন্তু আ’সামি ধ’রা হয়নি। ফিরে এসে দেখেন- তার মোটরসাইকেলটি নিয়ে যাচ্ছে চো’র। এ সময় আ’সামি না পে’লেও মোটরসাইকেল চো’রকে ধরে থানায় নিয়ে যান তিনি।

ঘটনাটি ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌ’রসভার পাঁচপাড়া মহল্লায়। জনতার মা’রধরে এখন হা’সপাতালে চি’কিৎসাধীন চো’র।

এএসআই দিলিপ কুমার জানান, বিলের মাঝখানে মা’দক সেবন ও ক্রয়-বিক্রয় করছে একদল মা’দক বিক্রেতা-

পরে তিনি দ্রুত অন্য একজনের মোটরসাইকেলের সহযোগিতায় নিজের মোটরবাইকের কাছে পৌঁছতেই মোটরসাইকেল চালু করে চলে যেতে চাইলে ওই ব্য’ক্তিকে আ’টক করেন।

পরে ধ’স্তাধ’স্তির একপর্যায়ে লো’কজন ছুটে এসে পি’টুনি দিয়ে থানায় নিয়ে যায়। সেখান থেকে আ’হত চো’রকে প্রাথমিক চি’কিৎসার জন্য হা’সপাতালে পাঠানো হয়।

জানা গেছে, আ’টকৃত চোরের বাড়ি কি’শোরগঞ্জ জে’লার কটিয়াদি উপজে’লার গৌরীপুর গ্রামে। নাম মো. ফজলুর রহমান (৪০), বাবার নাম আব্দুর রহিম। এ ব্যাপারে মা’মলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

অবশেষে ধ”ণ মা’মলায় এএসআই রাহেনুল গ্রে’ফতার

রংপুরে নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধ”ণের ঘটনার মূল হোতা মহানগর ডি’বি পুলিশের এএসআই রাহেনুল ইসলাম ওরফে রাজুকে অবশেষে গ্রে’ফতার করা হয়েছে।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) রাত সাড়ে নয়টার দিকে তাকে গ্রে’ফতার করে মেট্টোপলিটন পুলিশ লাইন্স থেকে নগরীর পিবিআই কার্যালয়ে নেওয়া হয়। এর আগে দুইদিন তাকে মেট্টোপলিটন পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছিল ।

বর্তমানে তাকে নগরীর কেরানী পাড়ায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কার্যালয়ে রাখা হয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার তাকে আ’দালতে নেওয়া হবে।

এর আগে রংপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতের বিচারক জাহাঙ্গীর আলমের কাছে ২২ ধারায় দেয়া ঘটনার বর্ণনায় রাহেনুলের সম্পৃক্ততার কথা জানান ধ”ণের শি’কার স্কুলছাত্রী।

এ সময় জে’লা পিবিআই পুলিশের পুলিশ সুপার এবিএম জাকির হোসেন লেন, গণধ”ণের ঘটনার আগের দিন ২৩ অক্টোবর প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে

এএসআই রাহেনুল তার পূর্বপরিচিত এজাহার ভুক্ত আ’সামি ভাড়াটিয়া মেঘলার বাড়িতে নিয়ে মেয়েটির সাথে শা’রীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে।

পরে ওই স্কুলছাত্রী রাহেনুলের সাথে ঘোরাঘুরি করে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরলে তার মা বকাবকি করেন। এতে মেয়েটি অভিমান করে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here