সারাদেশঃ ঝালকাঠির নলছিটিতে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১২) ধ”ণের অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অ’ভিযুক্ত মনির হোসেন (২২) নামে এক

যুবককে গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) রাতে স্থানীয়রা আ’টক করে পুলিশে দিয়েছে। মনির উপজে’লার মালোয়ার গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে। পুলিশ জানায়,

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত একটার দিকে মনির হোসেন তাদের প্রতিবেশীর ঘরে ঢুকে এক কি’শোরীকে ধ”ণ করে। মেয়েটির চি’ৎকার শুনে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা

এসে ধ”ণকারীকে আ’টক করে। তাকে মা’রধর করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। এ ঘটনায় আজ শুক্রবার সকালে নলছিটি থানায় একটি মা’মলা দা’য়ের করেছেন মেয়েটির মা।

নলছিটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হালিম তালুকদার জানান, শুক্রবার সকালে মেয়েটির মা মা’মলা দা’য়ের করেছেন। আ’সামিকে দুপুরে আ’দালতে পাঠানো হবে। সূত্রঃ আরটিভি

কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে অ’ন্তঃসত্ত্বা নার্সকে নির্জন জঙ্গলে নিয়ে যায় ৪ যুবক

সারাদেশঃ কুমিল্লায় কর্মস্থল থেকে বাসায় ফেরার পথে অ’ন্তঃসত্ত্বা নার্সকে গণধ”ণের চেষ্টা করার অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ওই নার্স মাথায় আ’ঘাত পেয়েছেন।

এ ঘটনায় রিয়াদ (২২) নামের একজনকে আ’টক করেছে পুলিশ। কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজে’লার কালির বাজার ইউনিয়নের মোস্তফাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ওইদিন রাত ১১টার দিকে নি’র্যাতিত ওই নার্সকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় জ’ড়িত অপর এক যুবক প’লাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, কালির বাজার এলাকার একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নার্স হিসেবে কাজ করেন ওই নারী। বুধবার সন্ধ্যার পর কর্মস্থল থেকে

বাড়িতে ফেরার পথে মোস্তফাপুর এলাকায় তাকে রাস্তা থেকে তুলে পার্শ্ববর্তী নির্জন জঙ্গলে নিয়ে যায় চারজন যুবক।এ সময় ওই যুবকরা তাকে ধ”ণের চেষ্টা করে।

ধ’স্তাধ’স্তি ও তাদের হাতে থাকা টর্চলাইটের আ’ঘাতে আ’হত হন তিনি। এক পর্যায়ে দৌঁড়ে পা’লিয়ে আসেন ওই নার্স।

এ ঘটনার খবর পেয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী থানা ও নাজিরা বাজার পুলিশ ফাঁ’ড়ির সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান। পরে তারা এ ঘটনায় অ’ভিযুক্ত একজনকে আ’টক করেন।

ওই নার্সের মামা জানান, প্রতিদিনের মতো বুধবার রাতে কর্মস্থল থেকে বাড়িতে ফেরার পথে সড়কের পাশের মাচায় বসে থাকা স্থানীয় ওই ব’খাটেরা তার ভাগ্নির পথরোধ করে।

পরে তাকে নির্জন স্থানে তুলে নিয়ে নি’র্যাতন করে তারা। ধ’স্তাধ’স্তির সময় ব’খাটেরা তাকে টর্চ লাইট দিয়ে আ’ঘাত ও মা’রধর করে। এরপর সে দৌঁড়ে পা’লিয়ে এসে পুলিশকে ঘটনাটি জানায়।

কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ারুল হক বলেন, এ ঘটনায় একজনকে আ’টক করা হয়েছে। ঘটনাটি নিয়ে থানায় মা’মলার প্রস্তুতি চলছে।

ভর্তির সময় ওই নার্স জানিয়েছে তাকে চারজন মিলে তাকে ধ”ণের চেষ্টা করেছে। ওই নারী ছয় মাসের অ’ন্তঃসত্ত্বা । আমরা তাকে সেবা দিয়েছি। তিনি এখন সুস্থ আছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here