বাদশা আলম নামে এক মুদি দোকানি বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করায় রাজশাহীর বাঘা উপজেলার এক নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন।

কিন্তু এখন ওই প্রেমিক আর তাকে বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় অসহায় হয়ে পড়েছেন ভুক্তভোগী নারী।বিষয়টি জানতে পেরে সন্তান প্রসব পর্যন্ত ওই নারীর চিকিৎসার ভার এবং

ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর তার সন্তানের লালন-পালনসহ সব ব্যয় বহনের দায়িত্ব নিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমশুক্রবার সন্ধ্যায় ওই নারীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে।

বাঘা উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফাতেমা মাসুদ লতা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।জানা গেছে, ভুক্তভোগী নারীর স্বামী প্রায় সাত মাস আগে দ্বিতীয় বিয়ে করে অন্যত্র চলে যান।

এর পাঁচদিন পর অভিযুক্ত বাদশা আলমকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বর্তমানে তিনি কারাগারে আছেন।বাঘা উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফাতেমা মাসুদ লতা জানান,

‘ভুক্তভোগী নারীর খবরটি শোনার পর আমি বিষয়টি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমকে জানালে তিনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।’

বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম জানান, প্রতিমন্ত্রী খবরটি জানার পর স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমে ওই নারীর সন্তানের লালন-পালনের দায়িত্ব গ্রহণের বিষয়টি জানিয়েছেন।

মায়ের সংসার ভাঙার গুঞ্জনে শ্রাবন্তীর ছেলে ঝিনুকের র’হস্য!

বিনোদনঃ কয়েক মাস আগে কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি ও রোশান দাম্পত্য জীবনের এক বছর পূর্ণ করেন। ভালোই চলছিল এ জুটির জীবন। হঠাৎ তাদের এ সংসারে

ভাঙনের সুর বাজছে! দুর্গাপূজার আগে থেকে আলাদা থাকছেন তারা। বেশ সুখেই ছিলেন শ্রাবন্তী৷ হঠাৎ কি হলো যে স্বামী রোশান সিংয়ের থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন তিনি

এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে সবাই। এমনি সময় নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে বড় ঘোষণার ইঙ্গিত দিয়ে র’হস্য জমিয়ে দিলো শ্রাবন্তীপুত্র ঝিনুক ওরফে অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায়।

শুক্রবার (৭ নভেম্বর) ইনস্টাগ্রাম পোস্টটি করে অভিমন্যু। নিজের ও মায়ের একটি পুরনো ছবি শেয়ার করেছে। পাশাপাশি শেয়ার করেছে একটি ভিডিও।

যাতে সংগীতের ব্যবহারও করা হয়েছে। নিজের পোস্টের ক্যাপশনেই অভিমন্যু লিখেছে, ‘বড় কিছু আসছে।’এর আগে পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে বিয়ে করেন শ্রাবন্তী।

রাজীব ও শ্রাবন্তীর এক ছেলেও রয়েছে। সেই সম্পর্কও বেশিদিন টেকেনি। তারপর মডেল কৃষ্ণবিরাজের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান শ্রাবন্তী। বিয়েও করেন। সে সম্পর্কও এক বছর ঘুরতে না

ঘুরতে ভে’ঙে যায়। কৃষ্ণবিরাজকে ডিভোর্স দেন। এরপর ২০১৯ সালের ১৯ এপ্রিল চণ্ডীগড়ের একটি গুরুদ্বারে গিয়ে রোশনের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁ’ধেছিলেন শ্রাবন্তী।

তারপর থেকেই সোশাল মিডিয়ায় স্বামীর সঙ্গে নানা ভালবাসার মুহূর্ত শেয়ার করেছিলেন। এমনকী, শ্রাবন্তী সঞ্চালিত রিয়ালিটি শো ‘সুপারস্টার পরিবার’- এও রোশন ও তার

পরিবারকে দেখা গিয়েছিল। স্বামীকে নিয়ে ঘুরতে এসেছিলেন বাংলাদেশেও।তার কোনো প্রমাণই এখন আর শ্রাবন্তী কিংবা রোশনের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে নেই।

এমন অবস্থাতেই ঝিনুকের এই পোস্ট কৌতুহল বাড়াল। আদৌ কি শ্রাবন্তী-রোশনের সম্পর্ক ভাঙতে চলেছে? নাকি এই সাসপেন্স নতুন কোনো ঘোষণার আগে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করার হাতিয়ার মাত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here