ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। সে সঙ্গে সমর্থনের জন্য বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

রোববার টুইটারে দেওয়া পোস্টে নেতানিয়াহু বলেন, ‘জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন। জো, আমাদের প্রায় ৪০ বছরের দীর্ঘ ও উষ্ণ ব্যক্তিগত সম্পর্ক রয়েছে।

আপনাকে আমি ইসরায়েলের একজন দুর্দান্ত বন্ধু হিসেবে জানি। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের মধ্যকার বিশেষ জোটকে আরও জোরদার করতে আপনার দুজনের সঙ্গে কাজ করার অপেক্ষায় রয়েছি।’

টুইটারে নেতানিয়াহু লিখেছেন, ‘জেরুজালেম ও গোলানকে স্বীকৃতি দেওয়া, ইরানের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো, ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি এবং যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েল জোটকে অভূতপূর্ব উচ্চতায় নিয়ে যেতে ইসরায়েল ও ব্যক্তিগতভাবে আমার প্রতি বন্ধুত্ব প্রদর্শনের জন্য ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানাই।’

হাসপাতালে ফুটফুটে নবজাতককে রেখে উধাও মা-বাবা

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ফুটফুটে এক নবজাতক মেয়ে জন্ম দিয়ে সাঈদা বেগম নামে এক মা পালিয়েছেন। নবজাতক শিশুটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছে এবং সে সুস্থ আছে।

শনিবার (৭ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় ওই নবজাতকের জন্ম হয় বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মধুসূধন ধর।

রোববার (০৮ নভেম্বর) স্বাস্থ্য দুপুর ১টায় জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেলে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সাইদা বেগমকে নিয়ে উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের বালিকান্দি গ্রামের ফারুক মিয়া পরিচয়ে একজন হাসপাতালে ভর্তি হন।

বিকেলে ফুটফুটে এক কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। নবজাতককে হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। একপর্যায়ে সন্ধ্যার দিকে শিশুটির

মা–বাবা তাকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যান। হাসপাতালে ভর্তির সময় দেয়া তথ্যে যোগাযোগ করে এই নামের কোনো দম্পতির খোঁজ পাওয়া যায়নি।

জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মধুসূদন ধর সকালে বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ও নার্সদের তত্ত্বাবধানে ওই অন্তঃসত্ত্বা নারীর স্বাভাবিকভাবে সন্তানের জন্ম হয়।

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, নবজাতকের মা–বাবার পরিচয় শনাক্তে কাজ করছি। এখন পর্যন্ত কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

কলকলিয়া ইউনিয়নের বালিকান্দি গ্রামের বাসিন্দা ও ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আবদুল হাশিম বলেন, বালিকান্দি গ্রামে খোঁজ করে তাদের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। মনে হচ্ছে, হাসপাতালে ভুল তথ্য দিয়ে অন্তঃসত্ত্বা নারীকে ভর্তি করিয়েছিলেন তার স্বামী ফারুক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here