র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার আলমকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে বদলির আদেশ দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

গতকাল সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব আলিয়া মেহের স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ দেয়া হয়। সারোয়ার আলমকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক

কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে বদলি করা হয়েছে।তবে অন্যান্য বদলির আদেশ জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইটে দেয়া হলেও এটি দেয়া হয়নি।

সরওয়ার আলম নিজেই তার নতুন কর্মস্থলে বদলির বিষয়টিনিশ্চিত করে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমাকে বদলি করা হয়েছে। নতুন দায়িত্বে

ইসলাম ও নবীর বি’রুদ্ধে পোস্ট দেয়ায় স্বা’মীর সঙ্গে ছা’ড়াছা’ড়ি হয়

অনলাইন ডেস্কঃ প্রবাদ আছে ‘অতি লোভে তাঁতি ন’ষ্ট’। ফ্রান্সের অ্যাসাইলাম বা রাজনৈতিক আশ্রয় পেতে দেশে বসে ইসলাম ধর্ম, আল্লাহ্ এবং নবী মোহাম্মদ (সা.)

কে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে ধর্মীয় উ’স্কানিমূলক পোস্ট দিচ্ছিলেন ১৯ বছর বয়সী তরুণী ইশরাত জাহান রেইলি।

গত ৩ বছর যাবত এসব কর্মকাণ্ড চা’লিয়ে আসছিলেন তিনি। এসব কর্মকাণ্ডের কারণে গত ২ বছর আগে স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়িও হয় তার।

এরপর ৩ বছর বয়সী ছেলে স’ন্তান নিয়ে মায়ের সঙ্গে রাজধানীর দারুসসালাম এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন রেইলি। কমিউনিটি পুলিশে নিম্ন পর্যায়ে চাকরিও ছিল তার।

সম্প্রতি ফ্রান্সে ধর্মীয় অবমাননার ইস্যুতে যখন পুরো বিশ্ব উত্তাল হয়ে ওঠে, সে সময় রেইলি আরও বে’পরোয়া হয়ে ওঠেন। যদিও গত ৩ বছর যাবত এই

কর্মকাণ্ড চা’লিয়ে আসছিলেন তিনি। র‌্যা’বের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, রেইলির ৭টি আইডি ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করে নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে।

তার একটি আইডি নিষ্ক্রিয় করা হলে, আরেকটি আইডি খুলে সে ধর্মীয় অবমাননাকর পোস্ট অব্যাহত রাখে। এভাবেই আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও গো’য়েন্দাদের সঙ্গে

‘চোর-পুলিশ’ খেলছিল এই বে’পরোয়া তরুণী।স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়িখুব অল্প বয়সেই বিয়ে হয় ইশরাত জাহান রেইলির। এইসএসসি শেষ করে বেগম বদরুন্নেসা

স’রকারি মহিলা কলেজে ভর্তি হলেও পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি রেইলি। সাবেক স্বামী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ালেখা শেষ করে একটি বেস’রকারি

প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর আর বিয়ে করেননি রেইলি। তবে একাধিক অ’নৈতিক সম্পর্কে জ’ড়িত ছিলেন বলে অ’ভিযোগ রয়েছে এই তরুণীর বি’রুদ্ধে।

ফেসবুক অনুরোধ রাখলেও উল্টো টুইটারউন্নত বিশ্বে রাজনৈতিক আশ্রয় নেয়ার ক্ষেত্রে ধর্ম ও রাজনীতি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উ’স্কানিমূলক বক্তব্য

দিয়ে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টার অ’ভিযোগ রয়েছে অনেকের বি’রুদ্ধে। যে পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে উন্নত রাষ্ট্রে আশ্রয় পাওয়ার পথ সুগম হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here