সিলেটের আলোচিত রায়হান হ’ত্যা মা’মলার প্রধান আসামী এসআই আকবর হোসেন ভূইয়া পুলিশের পাতানো ফাঁ’দে আ’টক হয়েছে। কিন্তু তার এ আ’টক

নিয়ে পরবর্তী জনমনে নানা বিভ্রা’ন্তি ছড়িয়ে পড়েছে। কেউ বলছে পুলিশ, আবার কেউ বলছে রহিম নামের এক যুবক তাকে আ’টক করেছে।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও কিছু অনলাই মিডিয়ায় ভু’ল তথ্য প্রকাশ করে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে। গতকাল মঙ্গলবার সরেমজিন অনুসন্ধানে বেরিয়ে

এসেছে আকবর গ্রে’ফতারের আসল কাহিনী। বিভিন্ন তথ্য প্রমাণে জানা যায় রায়হান হ’ত্যার পর সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লার ভোলাগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে আকবর

এসআই আকবর সিন্ধান্ত নেয়। এদিকে আকবরের অবস্থানের উপর ক’ঠোর নজরদারী ছিল সিলেট জে’লা পুলিশের। একপর্যায়ে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে

জানতে পারে আকবরের ভারতে অবস্থানের কথা। এরপর আকবরের আশ্রয়দাতা গোপালের পিছনে কয়েকজন বিশ্বস্থ সোর্স লাগিয়ে দেয় পুলিশ।

এতে মোটা অংকের বিনিময়ে আকবরকে কৌশলে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য সোর্সরা গোপালকে কাবু করে নেয়। এদিকে আকবর গোয়াহাটিতে যাওয়া জন্য ব্যাকুল।

তাই গোয়াহাটিতে পৌঁছে দেয়ার জন্য আকবর গোপালের সাথে এক লক্ষ টাকার চুক্তি করে এবং সেই অনুযায়ী আশ্রয়দাতা গোপাল দিনক্ষণ ঠিক করে গত

রবিবার রাতে আকবরকে গোয়াহাটিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য অভিজিৎ নামের এক চালকের এলট্রো কার ভাড়া করে। কিন্তু তারা পুলিশের

পরিকল্পনা অনুযায়ী আকবরকে গোয়াহাটিতে না নিয়ে কৌশলে মেঘালয়ের সীমান্তবর্তী সে’না রোড দিয়ে উখিয়াং পেট্রোলপাম্পের কাছে রবিবার রাত ৩টায় পৌঁছায়।

যেসব কারণে পরকীয়ায় আসক্ত হচ্ছে প্রবাসীর জীবনসঙ্গী

আগের দিনের রাজা বাদশাহর যুগ থেকে কল্প কাহিনীর মুখরোচক গল্প কিংবা বর্তমান যুগে পর’কী’য়া প্রে’ম শব্দটির সাথে কম বেশী সকলেই পরিচিত।

ঐতিহাসিক রাজতন্ত্রের আমলে রাজা কিংবা রানী পর’কী’য়া প্রে’মের শিকার হয়েছেন।এই ক্ষেত্রে রানীরা ছিলেন এগিয়ে।হাল আমলেও ঘরের

স্ত্রী’দের সংখ্যাই বেশী বলে প্রতিয়মান। পুরুষগণ যে খুব একটা পিছিয়ে তা কিন্তু নয়। নারীদের পর’কী’য়া প্রে’মে জ’ড়িয়ে যাবার বিভিন্ন কারন

থাকলেও পুরষদের বেলায় হিন্দি বা উর্দু ভাষার একটি প্রবাদ অনুপ্রেনার মূল বিষয়। প্রবাদ টি এ রকম “ঘরকা মুরগি ডাল বরাবর”।এ বিষয়ের উপর হিন্দিতে

বেশ কয়েকটি ছবি হয়েছে এখন শুধু মাস্তি ছবিটির নাম মনে পড়ছে।পুরুষদের বেলায় আমাদের দেশীয় একটি প্রচলিত কথা রয়েছে যেমন অন্যের বউ বেশি সুন্দরী।

স্ত্রী’দের বেলায় কোন প্রবাদ কিংবা কোন প্রচলিত কথা এখন মনে পড়ছে না।তবে দীর্ঘ প্রবাস জীবন চাকুরীর সুবাদে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাওয়ার সুযোগে এবং বিভিন্ন

এলাকার মানুষের সাথে মেশার সুযোগে জানা গেছে নানা স’ত্য ঘ’টনা। এ ছাড়া পত্রিকা পড়ার বয়স থেকে নানা রকম খু’ন রাহা’জানির নেপথ্যে ছিলো পর’কী’য়া প্রে’ম।

পর’কিয়া প্রে’ম কি এবং কেন? : বিবাহিত স্ত্রী’ বা পুরুষ বিপরীত লি’ঙ্গের প্রতি প্রে’ম বন্ধনে আবদ্ধ হলে আম’দের দেশে আভিধানিক ভাষায় পর’কী’য়া বলা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here