কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় স্কুলছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত-২।

একই সঙ্গে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০-এর ৭ ধারায় তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের

সশ্রম কারাদণ্ড; ৯(১) ধারায় এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। আরোপিত জরিমানা আদায়

করতে কক্সবাজার জেলা কালেক্টরকে আদেশ প্রাপ্তির ৩০ দিনের মধ্যে আসামির স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ক্রোক এবং নিলাম বিক্রি করে বিক্রির অর্থ আদালতে জমা দিতে বলেছেন আদালত।

রায়ের সময় নাসির উদ্দিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় শুনে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন।নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল

আদালত-২-এর পাবলিক প্রসিকিউটর (স্পেশাল পিপি) অ্যাডভোকেট সৈয়দ মো. রেজাউর রহমান বলেন, মামলায় বাদী,

ভিকটিম, তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ ১২ জনের জবানবন্দি গ্রহণ করেন আদালত। সাক্ষীদের সাক্ষ্যে নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এ রায় দেন আদালত।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালের ৭ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৭টার দিকে নাসির উদ্দিন বাদীর বাড়িতে ঢুকে তার মেয়ে জোসনাকে (১৩) (ছদ্মনাম) অপহরণ করে

একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে জোসনাকে ধর্ষণ করেন নাসির। এ ঘটনায় মামলা করেন জোসনার বাবা। কুতুবদিয়া থানার তৎকালীন এসআই জয়নাল আবেদীন

২০১৮ সালের ১৯ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দেন। অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে একই বছরের ২৪ অক্টোবর আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়। যুক্তিতর্ক শেষে বৃহস্পতিবার রায় দেন বিচারক।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে যা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, ক্লাস খোলার মতো অবস্থা হলেই খুলবো। একইসঙ্গে অনলাইনে ক্লাসও চলবে। তবে স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিষয়টি মাথায় রেখেই

এ চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। বুধবার (২৫ নভেম্বর) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী জানান, পহেলা জানুয়ারি বই বিতরণ করা হবে। আর ১৫ জানুয়ারির মধ্যে ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাবে বলে আমরা আশা করছি।

উল্লেখ্য, করোনার কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। গত ১ এপ্রিল এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। করোনার কারণে তা স্থগিত করা হয়।

আগামী বছরের এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় নিয়ে সীমিত পরিসরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হতে পারে বলে আগেই আভাস দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

এক আলোচনায় দীপু মনি বলেন, সংকটের মধ্যেও আমরা পড়াশোনাকে চালিয়ে নিতে পেরেছি, চালিয়ে যাচ্ছি,

অবশ্যই এটি আমাদের কোনো আদর্শ পরিস্থিতি নয়। আমাদের অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে, তার মধ্যে আমরা চেষ্টা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here