জীবনের বিভিন্ন সময়ে সবমিলিয়ে প্রায় ১২ বার আ’ত্মহ’’ত্যা করার কথা ভেবে”ছিলেন এই সময়ের জ’নপ্রিয় অ’ভিনেত্রী ও ম’ডেল শবনম ফারিয়া।

তিনি এক ফে’সবুক স্ট্যা’টাসে এ ত’থ্য শে’য়ার করেছেন। সে’ইস’ঙ্গে তিনি জা’নিয়েছেন, কে’ন ও কো’ন ঘট’নার প্রে’ক্ষিতে ওই ধরণের চি’ন্তা করেছিলেন।

ফেসবু’ক স্ট্যাটা’সে ফারিয়া লি’খেছেন, ‘শু’নতে খুব সহ’জ শো’নালেও যিনি বিষ’য়টার ম’ধ্য দি’য়ে যায় সেই জা’নে এ’ইটা নিয়ে স্বা’ভাবিক

জী’বন যা’পন কতটা’ ক’ঠিন! আমা’র প্রথম ‘ডি’প্রেশন (বি’ষন্ন’তা) শু”রু হয় ২০১৫ সালে, একটা “সা’মান্য” ব্রে’কআ’প্রের। যদিও এ’খন সা”মান্য ব’লছি,

ক’থাবা’র্তা লি’খে ফে’লা, রা’তের পর রাত ঘুম না হওয়ায় শু’টিংয়ের সে’টে খি’টখি’টে মে’জাজে থা’কা বি’ষ’ন্নতার একটা ব’হি:প্র’কাশ!

সে’ই বি’ষ’ন্নতা প্রা’য় ছয় মা’সের ম’তো ছিল। আ’মা’র বাবা-মা’র চে’ষ্টায় অনেক’টাই স্বা’ভাবিক হয়।’ পরের আ’রেকটি ঘট’না

উল্লেখ ক’রে জ’নপ্রিয় ওই অ’ভি’নেত্রী লিখেছেন, ‘দ্বি’তীয়’বার আ’বার বি’ষন্ন’তা বু’ঝি বাবা মা’রা যা’ওয়ার পর। যে’হেতু ছো’টবেলা

থে’কেই বাবা-মা সব’চেয়ে ভা’ল বন্ধু ছিল, আর আ’মা’র বা’বাকে যা’রা ব্য’ক্তিগ’তভাবে চে’নেন শু’ধু তারাই জা’নে আমা’র বাবা আর আ’মা’র বন্ধু’ত্বের প’রিধি।

বা’বার মৃ’ত্যুর পর আ’মা’র মনে হ’লো আ’মা’র আ’সলে কে’উ নে’ই। মা’র কি’ছু হলে আমা’র কী’ হবে! কি’ন্তু তত’দি’নের আ’মা’র মা

এবং আ’মি দু’জনই বু’ঝে গে’ছি যে আ’মি বি’ষন্ন’তায় আ’মা’র মা অ’নেক’টা জো’র ক’রেই আমাকে বা’বা চলে যা’ওয়ার ১৫ দি’নের ম’ধ্যেই কা’জে পা’ঠায়।

ত’খন যেটা হ’লো কা’জে থা’কলে আ’মি সব ভুলে যাই।যে’হেতু আ’মা’র পে’শাটাই অ’দ্ভুত এ’কটা পেশা। যে সে’ট এ ঢুক’লেই আম’রা

অ’ন্য কেউ হ’য়ে যেতে পা’রি! কি’ন্তু বা’সায় ফি’রলে সে’ই এ’কই অনু’ভূতি। আ’মা’র মা কি’ন্তু আ’র ‘সেই রি’স্ক নে’য়নি। আ’মাকে

“ক্লি’নি’কেল সা’ই’কোল’জিস্ট” এর কা’ছে পা’ঠান এবং ২/৩ বার ক’থা বলার পরেই আ’মা’র বি’ষ’ন্ন’তা সে বারে’র মত চলে যায়।’

হ’ঠাৎ করে আ’ত্মহ’’ত্যার বি’ষয়ে তি’নি কে’নো লি’খছেন, তা জা’নিয়ে ফারিয়া লিখেছেন, ‘এখন ক’থা হ’লো এ ক’থা কেন ব’লছি (লেখা)!

কার’ণ সেই প্রথমবা’রের ছ’য়মাস বি’ষন্ন’তায় থা’কা অবস্থায় কম ক’রেও কম’প’ক্ষে ১২ বার আ’মি সু’ই’সা’ই’ডের কথা ভে’বেছি!

ঘু’মের ও’ষু’ধের পা’তা হাতে নিয়ে ঘ’ন্টার পর ‘ঘ’ন্টা বসে থে’কে নিজের সাথে নিজে যু’দ্ধ করেছি। সেস’ময় আমি য’দি চ’লে যে’তাম,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here