বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানানোর চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ (সিদ্ধিরগঞ্জ-ফতুল্লা) আসনের সং’সদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ভিতরে-বাহিরে দেশের বি’রুদ্ধে ষ’ড়যন্ত্র চলছে। ইসলামকে নিয়ে ষ’ড়যন্ত্র হচ্ছে। আমাদের এ ষ’ড়যন্ত্র মো’কাবিলা করতে হবে।

সমাজকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হলে ভালো মানুষদের নিয়ে কাজ করতে হবে। ভালো মানুষদের নিয়ে কাজ না করলে সমাজকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব নয়।

শুক্রবার জুমার নামাজের আগে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পূর্বপাড়ার মজিববাগ এলাকার মজিববাগ বাইতুর রহমান জামে মসজিদের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

এক পর্যায়ে সং’সদ সদস্য শামীম ওসমান মসজিদে উপস্থিত সকল মুসল্লিদের কাছে নিজের ভু’ল-ভ্রান্তির জন্য ক্ষমা চেয়ে বলেন, আমি মৃ’ত্যুর পরে কারও কাছে ক্ষমা চাইতে পারবো না।

তাই আমি মৃ’ত্যুর পূর্বেই সকলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জে’লা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন,

মাদানীনগর মাদ্রাসার মোহতামি মুফতী ফয়জুল্লাহ স্ব’ন্দীপি, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মসজিদের মুতওল্লী মজিবুর রহমান,

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়া, নাসিক প্যানেল মেয়র মতিউর রহমান মতি, নাসিক কাউন্সিলর ওমর ফারুক, ইফতেখার আলম খোকন,

শাহজাল বাদল, ইকবাল হোসেন, রুহুল আমিন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক ভূইয়া রাজু,

আওয়ামী লীগ নেতা মাহবুব হোসেন, আবুল হোসেল আবুল, মহসিন ভূইয়া, যুবলীগ নেতা ফারুক ও হুমায়ুন কবির প্রমুখ। সুত্রঃ বিডি প্রতিদিন

বউকে ‘আপন বোন’ বানিয়ে চাকরি নেয়ার ঘটনায় দুই শিক্ষক বরখাস্ত

জামালপুরের বকশীগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধার ভুয়া সন্তান হিসেবে চাকরি নেয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষককে বরখাস্ত করেছে শিক্ষা অধিদফতর।

বরখাস্ত হওয়া দুইজন হলেন- টুপকার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নাসরিন আক্তার ও খেয়ার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাপলা আক্তার।

২৭ অক্টোবর তাদের বরখাস্ত করা হয়। বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়ের সূত্রে জানা গেছে, নাসরিন আক্তার রবিয়ার চর গ্রামের বাসিন্দা ও মাদারের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আশরাফুল আলমের স্ত্রী। আর আশরাফুলের খালাতো বোন শাপলা।

আশরাফুল বীর মুক্তিযোদ্ধা সহিদুর রহমানের ছেলে। তিনি মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরি নেন। শুধু তা-ই নয়, তিনি স্ত্রী নাসরিন

ও খালাতো বোন শাপলাকে সহিদুর রহমানের নিজের সন্তান হিসেবে দেখিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরি নিয়ে দেন।

এ বিষয়ে নিয়ে ‘বউকে আপন বোন বানিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরি’ শিরোনামে চলতি বছরের ২৯ আগস্ট ডেইলি বাংলাদেশে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

সে সময় শাপলা আক্তার বলেছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় তার চাকরি হয়েছে কি না, তিনি জানেন না। আশরাফুল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here