বিয়ের দিন নামাজে সিজদারত অবস্থায় মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন সিলেটের বিশ্বনাথ উপজে’লার দৌলতপুরের কালিটেকা গ্রামের সুজন মিয়া।

তিনি পেশায় একজন রঙ মিস্ত্রী’’।ঘটনার নেপথ্যে জানা যায়, গত শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) বিকেলে তার বিয়ের দিন ধার্যের কথা ছিল।

হবু শশুরবাড়ির লোকজনের আপ্যায়নের জন্যে নিজ হাতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছিলেন। কিন্তু সকাল থেকেই বুকে ব্যথা অনুভব করতে থাকেন বর সুজন মিয়া।

পরে দুপুরে জুমা’র নামাজ পড়তে বুকে ব্যথা নিয়েই গ্রামের জামে ম’সজিদে যান তিনি।এসময় ব্যথা প্রচণ্ড আকার ধারণ করলে সুজন মিয়া সিজদায় পড়ে যান এবং

জুমা’র নামাজের পর তার হবু শশুরবাড়ির লোকজন আসার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই সব শেষ হয়ে গেল। আমাদেরকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে দিয়ে প্রিয় ভাইটি পাড়ি জমালো না ফেরার দেশে।

তিনি আরো বলেন, শুক্রবার সকাল থেকে বুকে ব্যথা অনুভব করছিল সুজন। জুমা’র আজানের সময় বুকে ব্যথা নিয়েই সে ম’সজিদে চলে যায়।

সেখানে গিয়ে বুকে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভব করে সিজদায় পড়ে সে। আর সিজদারত অবস্থায়ই সে মা’রা যায়। যদিও আম’রা

তাকে ওই অবস্থায় বিশ্বনাথ উপজে’লা সদরে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাই। তিনি পরীক্ষা করে তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।

<strong>সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রাস্তায় নামলে ভাস্কর্যবিরোধীদের অস্তিত্ব থাকবে না!</strong>

চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ হুঁ’শিয়ারি দিয়ে বলেছেন ‘যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনে বা’ধা ও ভা’ঙচুরের মতো ঘটনা ঘটানোর দুঃসাহস’

দেখাচ্ছেন স’রকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রাস্তায় নামলে তাদের অস্তিত্ব থাকবে না বলে । তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশের অস্তিত্বকে যারা বা’ধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করছেন,

তাদের দুঃসাহস না দেখানোর অনুরোধ জানাচ্ছি। আমরা সারা বাংলাদেশের ১০ লক্ষের অধিক স’রকারি কর্মচারী একসাথে আছি। এই বার্তাটুকু দেয়ার জন্য এখানে দাঁড়িয়েছি।

এই দুঃসাহস যারা করবেন তাদের কালো হাত ভে’ঙে দেয়া হবে। আপনারা যারা সেই দুঃসাহস করছেন তাদের বলছি, আজ আপনারা আমাদের প্র’তিবাদ মঞ্চে এনেছেন।

আমাদের রাস্তায় নামাবেন না। রাস্তায় নামলে আপনাদের অস্তিত্ব থাকবে না।’বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভা’ঙচুরের প্র’তিবাদে শনিবার (১২ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম জে’লা শিল্পকলা একাডেমিতে

আয়োজিত বিভাগীয় ও জে’লা পর্যায়ের স’রকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সমাবেশে তিনি এ হুঁ’শিয়ারি উচ্চারণ করেন। বিভাগীয় কমিশনার বলেন,

‘যদি আপনারা আর কখনো এই ধরনের দুঃসাহস দেখান আর কোনো প্রকার সুযোগ যদি আপনারা নেন; তাহলে আপনাদের অস্তিত্বকে বিলীন করে দেব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here