হিরো আলম গান গাইবার পর থেকেই দর্শকদের রোষানলে পড়েছেন। কেন আলমকে গান গাইতে হবে এমন প্রশ্ন করেছিলেন অনেকেই। ইউটিউবে ডিজলাইক ও নেগেটিভ মন্তব্যের ঝড় বয়ে গেছে।

তবে আলমের চতুর্থ গান মাওলা ও মাওলা গানটির ক্ষেত্রে ঘটেছে বেতিক্রম ঘটনা। ৯ ঘণ্টা আগে প্রকাশিত গানটি ১২ হাজারের বেশি লাইক পেয়েছে।

আর ডিজলাইক পড়েছে মাত্র ২ হাজারের মতো। অন্যদিকে কমেন্টস সেকশনেও প্রশংসায় ভাসছেন তিনি।
অনেকেই মন্তব্য করেছেন এই গানটি আলম অনেক ভালো গেয়েছেন।

এদিকে হিরো আলম আরটিভি নিউজকে বলেন, আমি গায়ক নই। দর্শকদের আনন্দ দেয়ার জন্যই গান গেয়েছি। ভুল ক্রুটি সবাই ক্ষমা সুন্দরভাবে দেখবেন। আমার পাশে থাকার জন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।

পড়াশোনা করছে ঢাকার জামিয়া ইসলামিয়া জহিরুদ্দিন আহম’দ, মানিকনগর মাদ্রাসায়। জানা যায়, ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসের দিকে জুবায়ের পবিত্র কোরআন মুখস্থ করতে শুরু করে।

এরপর ক’রোনাভা’ইরাসেের কারণে চলতি বছরের মার্চ থেকে স’রকার দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে। কিন্তু ছোট্ট জুবায়ের বসে থাকেনি,

পড়াশোনা চা’লিয়ে গেছে বাড়িতে। নিয়মিত শিক্ষকদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে দিকনির্দেশনা নিয়ে গত ৫ জুন পবিত্র কোরআন মুখস্থ করতে স’ক্ষম হয়েছে ছেলেটি।

জুবায়েবের এই সফলতায় জুবায়েরের মাদ্রাসাটির প্রি ন্সিপাল হাফেজ মাওলানা মুফতি জুবায়ের আহম’দ বলেন , শিক্ষকের কাছে সবচেয়ে ের মুহূর্ত হলো ,

যখন কোন শিক্ষার্থী সফলতা অর্জন করতে পারে। আমার কাছে মনে হচ্ছে জীবনের সবচেয়ে ের মুহূর্ত আমি এখন অনুভব করছি।

আমার একজন ছাত্র ক’রোনাকালেও মাত্র ৯ মাসে হাফেজ হয়েছে , এতে আমি অত্যন্ত িত । তিনি আরও বলেন ,

এছাড়াও কৃতজ্ঞতা জানাই হাফেজ শরিফুল ইসলামের প্রতি। তিনি আমাদের প্রতিষ্ঠা নে হিফজুল কোরআন বিভাগের শিক্ষক।

তার অক্লান্ত মেহনত এবং প্রচেষ্টায় শিক্ষার্থীরা মাদ্রাসার জন্য একের পর এক সফলতা বয়ে আনছে। সূত্র : আওয়ার ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here