হঠাৎ শা’রীরিক মি’লন বন্ধ করলে মে’য়েদের যা হয়, সকল ছে’লেদের জানা উচিৎ স্বামী-বিয়োগ, বিবাহ-বি’চ্ছেদ,

বা অন্য শহরে চাকরি, এধরনের নানাবিধ কারণে মি`লন’তা হা’রিয়ে যেতে পারে না’রীর থেকে।এতে অনেক সময় ক্ষ’তিগ্র’স্থ হয় না’রী শরীর।

মা’নসিক দিক থেকে সুখ ও শান্তি চলে যায়। অনেক দেখা দেয়। তবে কিছু ক্ষেত্রে ভালোও হয়। ভালো-ম’ন্দ মিলিয়ে স’হবা’স বন্ধ হওয়ার কারণে কী’ কী’ আসে জেনে নিন

মানুষের সঙ্গে দু’র্ব্য’বহার করতেও শুরু করে দিতে পারেন সেই না’রী। স্ক’টিশ গবেষকদের পরীক্ষায় জানা যায়, স’হবাস বন্ধ হয়ে গেছে এমন ম’হিলাদের নাকি লোকের সঙ্গে কথা বলতেও অ’সুবিধে হয়।

প্র’স্রাবের সময় জ্বা’লায’ন্ত্রণা শুরু হতে পারে তখন। কিন্তু স’হবাস করা বন্ধ হয়ে গেলে ই’উরিনারি ট্র্যা’ক্ট স’ম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়।

স’র্দি কা’শি প্র’তিরোধ ক্ষমতা কমে যায়: মি’লন- করলে শরীরে রো’গ-জী’বাণুর প্র’বেশ ক’ষ্ট’কর হয়ে ওঠে।

অর্থাৎ, শরীরে রো’গপ্র’তিরোধ শক্তি গড়ে ওঠে। পে’নসিলভেনিয়ার উ’ইলকিসবারে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মত, সপ্তাহে অন্তত দু’বার স’হবা’স করলে ইমিউনোগ্লোবিন অ ছোটো করে বললে, ওমঅ।’

কিন্তু অনেকদিন স’হবা’স বন্ধ থাকলে হৃ’দযন্ত্রে নে’তিবাচক সমস্যা তৈরি করতে পারে। শ’রীর ক’মজো’রি হয়ে পড়ে। নিয়মিত এ’ক্সারসাইজ় করলে বা ট্রে’ডমিলে দৌড়ালেও লাভ হয় না।

স’হবাস করার ইচ্ছে চলে যেতে পারে: যাঁরা মনে করেন, নিয়মিত স’হবাস করার অ’ভ্যাসে একবার দাঁ’ড়ি বসলে,

কা’মনা-বা’সনার লা’গাম ছাড়িয়ে যায়। তা হলে তাঁরা ভুল জানেন। স’হবা’স করা হঠাৎ বন্ধ হয়ে গেলে, মি’লিত হওয়ার বাসনা কমে যায়।

এটা মহিলাদের ক্ষেত্রে বেশি প্রযোজ্য। শরীরে উ’ত্তেজ’না লোপ পেতে শুরু করে। একটা সময় পর আর কামেচ্ছা জাগে না। বুদ্ধি কমে যায়: নিয়মিত স’হবা’স করা শুরু করলে,

সেটা যদি হঠাৎ ব’ন্ধ হয় যায়, তবে বু’দ্ধি লো’প পেতে পারে। সারাক্ষণের ক্লা’ন্তি, হ’তা’শা ম’স্তিষ্কে নেতিবাচক প্র’ভাব ফে’লতে পারে।

যার ফলে সবচেয়ে বেশি প্র’ভাবিত হয় স্ম’রণশ’ক্তি। সবকিছু ভু’লে যাওয়ার সমস্যা তৈরি হতে থাকে। আর এর জন্য দায়ি একমাত্র স’হবা’স থেমে যাওয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here