নিজের মতো জীব’ন কা’টাতে চেয়ে ফের একবার সুশান্ত ভক্তদের ট্রো’লিংয়ের শি’কার হলেন অ’ঙ্কিতা লো’খন্ডে।

এর আগে নি’জের বার্থ’ডে পা’র্টিতে সন্দীপ সিংকে আ’মন্ত্র’ণ জানিয়ে নে’টিজে’নদের কু’রু’চিকর আ’ক্রম’ণের শি’কা’র হ’ছি’লেন অঙ্কিতা।

এবা’র ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও কটু ম’ন্তব্য শুন’তে হ’লো তাঁকে। নিজের হবু স্বামী ভিকি জৈ’নের সাথে ঘ’নি’ষ্ঠ পো’জে জন্ম’দি’নে গ’রমি গানে নেচে’ছি’লেন অঙ্কি’তা।

অতিমা’রী পরিস্থিতিতে ও বন্ধু বান্ধ’বীদের সাথে জমিয়ে পা’র্টি কর’তে দে’খা যায় অ’ঙ্কিতা’কে অভিনে’ত্রীর মালা’ডে’র ফ্ল্যা’টেই করা হয়ে’ছি’লো সমস্ত আয়ো’জন।

যদিও এতে বিন্দু’মাত্র বিচলিত নন অঙ্কিতা।চাণক্যের একটি কথা ই’নস্টা’গ্রামে শেয়ার করে তিনি লেখেন, “লোকে কি বলছে, তা ভাবার দা’য়িত্ব যদি তুমি নাও,

জীবনে ব্যর্থতার প্রথম ধাপে পা রে’খেছো তুমি।” যদিও সুশান্তের দিদি শ্বেতা তাঁকে জন্ম’দিনের শুভেচ্ছা জানি’য়েছেন, তবে তাতে ‘ক্ষো’ভ কাটে’নি নেটিজেনদের।

নিজের স্কুলের ছাত্রকে নিয়ে পা’লিয়ে বিয়ে করলেন শিক্ষিকা। তারপরেই ঘটে গেলো অঘটন…

“স্কুলছাত্র ও শিক্ষিকা পা’লিয়ে বিয়ে করেছেন”, এইকথা এখন গ্রামের সবথেকে মুখরোচক খবর। সবার মুখে এখন তাদের কথাই ঘোরাঘুরি করছে।

এলাকার মানুষদের কথা শুনে জানা যায় যে স্কুল এবং কলেজের এস.এস.সি পরীক্ষার্থী স্কুলছাত্র অর্পন, তার ডাকনাম শুভ। সে তিনদিন আগে পা’লিয়ে যায় তার ক্লাস শিক্ষিকা সুবর্নার স’ঙ্গে। জানা যায় তারা পা’লিয়ে গিয়ে বিয়ে করেছে।

ছেলেটি বান্দুরা গ্রামের মঞ্জুর ছেলে আর মে’য়েটি পাশের হাসানাবাদ গ্রামের মে’য়ে। এলাকাবাসী জানায় মে’য়েটির এটা তৃতীয় বিয়ে।

বিভিন্ন সময় ওই শিক্ষিকা নানা অজুহাতে ওই ছাত্রের বাড়ি যেত। কেউ সেই বি’ষয়ে নজর দেয়নি কারন তাদের ছাত্র শিক্ষিকার সম্প’র্ক ছিল।

পু’লিশ ও স্থানিয় সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী গত সোমবার রাতে প্রেমের টানে ছাত্রের হাত ধরে প’লাতক শিক্ষিকা। ছেলেটি অপ্রা’প্তব’য়স্ক হওয়ায়

তার পরিবারের লোক থানায় অ’ভিযোগ করে। সেই শিক্ষিকা যে তার ছাত্রকে নিয়ে পালাবে তা কখনো কল্পনাও করতে পারেনি কেউ। সেই রাতেই পু’লিশ ত’দন্ত শুরু করে দেয়।

তারপর মঙ্গলবার রাতে ঐ শিক্ষিকার বাড়ি থেকে উ’দ্ধার করা হয় অর্পন এবং তার শিক্ষিকাকে। তখনই সেই শিক্ষিকাকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বুধবার সকালে লিখিত মুচলেখায় ছাড়া পায় অর্পন। তবে সুবর্না ও অর্পন পু’লিশের কাছে দাবী করে যে তারা কোর্ট ম্যারেজ করেছে।

আরো এরকমই এক ঘ’টনা জানা যায় পলা’শী হাইস্কুলের। সেই স্কুলের এক শিক্ষক স্কুলে পড়ানোর স’ঙ্গে স’ঙ্গে প্রাইভেট টিউশনও পড়াত।

আর সেই সূত্র ধরে সেই স্কুলের দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্প’র্ক তৈরি করে শিক্ষক। শুধু তাই নয়, তার স্ত্রী’কে গো’পন রেখে আটমাস আগে বিয়ে করে সেই ছাত্রীকে।

কিছুদিন আগে সেই শিক্ষক তাকে নিয়ে ওঠে নিজের বাড়িতে। তখন সবাই এই বি’ষয়টি জানতে পারে। তারপর সেই ছাত্রীর অভিভাবকেরা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here