কুষ্টিয়ায় গ্রামের বাড়িতে দাদা-দাদির কবরের পাশে শায়িত হলো রাজধানীর কলাবাগানে বন্ধুর বাসায় গিয়ে বি;কৃ;ত য;না;চা;রের ফ;লে অধিক র;ক্তক্ষ;রণে মা;রা যাওয়া সেই স্কুলছাত্রী।

শনিবার সকালে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার কমলাপুরের গোপালপুর ক;ব;রস্থানে তাকে দা;ফ;ন করা হয়।এর আগে সকাল ৭টা ৫ মিনিটে গোপালপুর ঈদগাহ মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার রাত ১টার দিকে ওই স্কুলছাত্রীর লা;শ ঢাকা থেকে নিজ বাড়িতে আসে। ভোর থেকেই শত শত মানুষ তাকে শেষ;বার দেখতে ভিড় করেন।

লা;শ আসার পর নিকটতম আত্মীয়-স্বজনরা কা;ন্নায় ভে;ঙে পড়েন। বারবার মুর্ছা যাচ্ছিলেন বাবা আল আমিন আহম্মেদ। পুরো এ;লাকায় শো;কে;র ছা;য়া নেমে আসে।

মানববন্ধনে স্কুলছাত্রীর বাবা আল আমিন আহম্মেদ, ছোটভাই নিভানসহ আত্মীয় স্বজনরাও উপস্থিত ছিলেন। সবাই এই হ;ত্যা;র দ্রুত দৃ;ষ্টান্ত;মূলক; ;শাস্তি; দাবি করেন।

এমন ঘটনা যেন আর কারোর সঙ্গে না ঘটে সেজন্য তারা প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনার দৃষ্টি আ;কর্ষণ করেন। এছাড়া মাম;লায় ও সুর;তহাল রিপোর্টে ওই স্কুলছাত্রীর বয়স দুই বছর

বা;ড়ানো হয়েছে দা;বি করে এর প্রতিবা;দও জানান তারা।প্রসঙ্গত, ওই স্কুলছাত্রী তার তিন ভাইবোন ও বাবা মা ধানমন্ডিতে থাকত।

সে মাস্টারমাইন্ড স্কুলে ‘ও’ লেভেলের শিক্ষার্থী ছিল। গত ৭ জানুয়ারি দুপুর ১২টার দিকে তাকে প্রেমে প্রলুব্ধ করে ধর্ষ;ণে;র উদ্দেশ্যে কৌশলে বাসায় নিয়ে যায় তার বন্ধু তানভীর ইফতেফার দিহান।

সেখানে বিকৃত যৌনাচারে তার র;ক্ষ;ক্ষ;রণ হলে হাসপাতালে নেন দিহান। হাসপাতালে তার মৃ;ত্যু হয়।
এ ঘটনায় তানভীর ইফতে;ফার দিহানকে (১৮)

একমাত্র আ;সা;মি করে কলাবাগান থানায় মা;ম;লা করেন নিহতের বাবা আল আমিন আহম্মেদ। কলাবাগান থানা পুলিশ দিহানকে গ্রে;ফতা;র করেছে।

১০ দিনের রি;মা;ন্ড চেয়ে তাকে আ;দালতে পাঠি;য়েছে পুলিশ।

তৈরি হল বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির ট্রেন, ছুটবে যাত্রীবাহী বিমানের চেয়েও দ্রুত ট্রেন

দিন যত যাচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি ততই এগিয়ে চলেছে এবং মানুষের দৈনন্দিন জীবনে তথ্য প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে ব্যাপকভাবে তথ্য প্রযুক্তির কল্যাণে

বিভিন্ন দিক গুলো যেমন উন্নত হচ্ছে ঠিক তেমনি মানুষের জীবনযাত্রায় পরিবর্তন এসেছে ব্যাপকভাবে এবং কোন রকম কষ্ট এবং

পরিশ্রম ছাড়াই মানুষ এখন তার কার্য সম্পাদন করতে পারছে অনায়াসে যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে ব্যাপক বিপ্লব এসেছে এই তথ্য প্রযুক্তির যুগে

বর্তমান সময়ে অতি দ্রুত এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় মানুষ চলে যেতে পারছে কোনরকম ভোগান্তি ছাড়াই যেটি আগে সম্ভব হচ্ছিল না

আগে অসীমদা গান্ধী পোহানোর পর মানুষ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে পারত বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির ট্রেন বানানোর দাবি করেছে দক্ষিণ কোরিয়া।

যে ট্রেনটি ঘণ্টায় পাড়ি দেবে ১ হাজার কিলোমিটার পথ। যাত্রীবাহী বিমানের চেয়েও দ্রুতগতি সম্পন্ন ট্রেন বানিয়েছে দেশটির দি কোরিয়া রেলরোড রিসার্চ ইনস্টিটিউট। খবর জিনিউজের।

এদিকে, দেশটির প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ট্রেনটি চলবে সুপারসনিক স্পিডে। এক ঘণ্টায় পাড়ি দেবে হাজার কিলোমিটার পথ।

অর্থাৎ যাত্রীবাহী বিমানের থেকেও দ্রুত ছুটতে পারবে এই বিশেষ ট্রেন।হাইপার টিউব ট্রেনটি দক্ষিণ কোরিয়ায় হাইপারলুপ ট্রেন এর নতুন সংস্করণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here