রাজধানীর মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেলের ছাত্রী আনুশকা নুর আমিন অর্নাকে ধর্ষণের পর মৃত্যুর ঘটনায় দিহান দায় স্বীকার করলেও তার তিন বন্ধুকে নিয়ে তৈরি হয়েছে নানা প্রশ্ন,

সন্দেহ আর সংশয়। আনুশকার পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রশ্ন উঠেছে- আনুশকার এমন করুণ মৃত্যুতে কি দিহান একাই জড়িত?

নাকি তার তিন বন্ধুও জড়িত ছিল? নাকি ঘটনার সময় দিহান বা আনুশকা উত্তেজক ওষুধ সেবন করেছিল বা তারা নেশাগ্রস্ত ছিল কিনা- সে প্রশ্নেরও জবাব মেলেনি।

এ ছাড়া আনুশকার বয়স নিয়েও রয়েছে নানা দোলাচল।আনুশকার এক স্বজন রোববার (১০ জানুয়ারি) গণমাধ্যমকে বলেন,

দিহান যদি একাই এমন নৃশংসতা চালায়, তাহলে সে কি নেশাগ্রস্ত ছিল, নাকি নিজে এবং মেয়েটাকে উত্তেজনাকর কিছু খাইয়েছিল?

দিহানের তিন বন্ধুকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেওয়া হলেও প্রয়োজনে আবারও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদেরকে থানায় ডাকা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তবে দিহান একা, নাকি তার সঙ্গে তিন বন্ধু জড়িত তা নিশ্চিত হতে ফরেনসিক পরীক্ষার প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করতে হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ কর্মকর্তারা।

ইতিমধ্যে পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে রোববার কারাগারে থাকা আসামি দিহানের ডিএনএ পরীক্ষার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

ফরেনসিক রিপোর্ট ও দিহানের ডিএনএ টেস্টের পর জানা যাবে তার বন্ধুরা জড়িত কিনা।সেই তিন বন্ধুকে আবারও থানায় নেয়ার বিষয়ে নিউমার্কেট অঞ্চলের

জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার আবুল হাসান জানান, প্রাথমিক তদন্তে দিহানের তিন বন্ধুকে জিজ্ঞাসাবাদ করে কোনো সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল।

তবে ডিএনএ পরীক্ষায় ফারদিনের তিন বন্ধুর সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে আইনের আওতায় তাদের আনা হবে।আনুশকার মরদেহ ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক বলেছেন,

‘মেয়েটি বিকৃত ও কুরুচিপূর্ণ যৌনাচারের শিকার হয়েছিল। তার যৌনাঙ্গ এবং পায়ুপথে ক্ষতচিহ্ন পাওয়া গেছে। এ কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে।’

এর পরই স্বজনরা প্রশ্ন তুলছেন- চিকিৎসকের বিবরণ অনুযায়ী এমন বর্বরোচিত পাশবিকতা একজনের পক্ষে করা সম্ভব কিনা?

‘লজ্জা’নয় জানতে হবেঃ নারীর স্ত’ন ঝুলে যাওয়া’র কার’ণ ও সমাধান

শারী’রিক গঠন ফিট না থাকলে মন খারাপ হতেই পারে। নারীর ক্ষেত্রে এই মন খারাপের কারণ হতে পারে স্ত’ন ঝুলে যাওয়া নিয়ে।

অল্প বয়সেই অনেক নারীর স্ত’ন ঝুলে যাওয়ার সম’স্যায় পড়তে হয়। এর অনেকগুলো কারণও আছে। তবে কারণ ও সমাধান জানা থাকলে এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

স্ত’ন ঝুলে যাওয়ার কারণ: শরী’রের গঠনের তারতম্যের কারণে স্ত’ন ঝুলে যেতে পারে। শরীর মোটা থেকে চিকন বা চিকন থেকে মোটা হওয়ার কারণে স্ত’ন ঝুলে যেতে পারে।

অনেক সময় অতিরিক্ত ব্যয়ামও স্ত’ন ঝুলে যাওয়ার একটি কারণ। সন্তান জন্মদানের কারণে অর্থাৎ প্রসূতিকালীন স্ত’নের আকার বড় হয়ে যাওয়ার কারণে স্ত’ন ঝুলে যায়।

আবার স্ত’ন অতিরিক্ত বড় ও ভারী হওয়ার কারণেও ঝুলে যেতে পারে।বয়সের কারণে স্বাভাবিকভাবেই স্ত’ন ঝুলে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here