আমা’দের মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন রকমের সখ থেকে থাকে । তাদের মধ্যে একটি অন্যতম শখ হল বাড়ি কেনা বা বাড়ি তৈরি করা ।

ছোট বেলা থেকেই ছেলে মেয়েরা নিজের স্বপ্নের বাড়ি একটা কাল্পনিক ছবি মনের মধ্যে একে বসে থাকে।
এটা আমা’দের কম বেশি সবারই মধ্যে দেখা যায় ।

পড়াশোনা শেষ করার পর যখন চাকরিতে প্রথম কেউ ঢুকে তখন তার মূলত প্রধান উদ্দেশ্য হয় ভবি’ষ্যতে নিজের জন্য একটি সুন্দর মনের মতন বাড়ি তৈরি করা।

তার জন্য লাগবে উপযুক্ত জমি এবং পর্যা’প্ত পরিমাণে টাকা।তাই চাকরিতে দাঁতে দাঁত চেপে চলে নিরন্তন পরিশ্রম ।

যেখানে দেখানো হয়েছিল যে তিন কাঠা জমির উপর কিভাবে নতুন ডিজাইনের অত্যাধুনিক বাড়ি বানাবেন ।বাড়ির প্রথম অর্থাৎ প্রবেশদ্বারে লক্ষ্য রাখলে আপনি দেখতে পাবেন

যে ফ্রন্ট এলেভেশন তা অত্যন্ত মডার্ন টাইপের । অর্থাৎ পুরনো আগেকার দিনের মতন নয়। এরপর যদি আপনি ভেতরে প্রবেশ করেন তাহলে প্রথমেই পাবেন একটি গ্যারেজ

যেখানে আপনি আপনার গাড়ি বাইক রাখতে পারে।এরপর আপনি সমগ্র ঘরটিতে পেয়ে যাব’েন তিনটি বেড রুম একটি কিচেন একটি টয়লেট এবং একটি বারান্দা ।

প্রথমে আপনাকে বলে রাখি বাড়ি একতলা বাড়ি। এবং তিন বেডরুমের মধ্যে একটি বেডরুম হলো হল কাম বেড রুম। এবং বাকি দুটি সাধারণ বেডরুমের মতন।

রান্নাঘর সাজানো হয়েছে অত্যাধুনিক ডিজাইন দিয়ে ।অর্থাৎ এখনকার দিনে একটি রান্নাঘর সুন্দরভাবে গু’ছিয়ে বলতে যে সমস্ত ডিজাইন এর প্রয়োজন হয় তার সব আছে ওই বাড়িতে।

এই বাড়িটির দাম আপনার সাধ্যের মধ্যে। বাড়িটির দাম এই মুহূর্তে রাখা হয়েছে ৪ লাখ টাকা .আপনি যদি এতদিন ধরে খোঁজ করছিলেন

যে কম দামে ভালো কিভাবে বাড়ি পাওয়া যাব’ে তাহলে এই ভিডিওটি আপনার জন্য।
কোন জিনিসের গন্ধ পেলে না’রীদের উ’ত্তেজনা বেড়ে যায় ১০০ গুন

যে জিনিসের গন্ধ পেলে না’রীদের উ’ত্তেজনা বেড়ে যায় ১০০ গুন- সু’খদায়ক বা স্যাটিস্ফায়িং একটি যৌ’ন মি’লনের প্রথম শর্ত হচ্ছে আপনার পার্টনারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া।

আপনি যে আ’নন্দ পাচ্ছেন সেও ততটুকূ আ’নন্দ পাচ্ছেন কী না তা যখন আপনি নিশ্চিত করতে উৎসাহিত হবেন, তখনই যৌ’নমি’লন আপনে আপ স্যাটিস্ফায়িং হবে।

না’রী কিছুটা উৎপীড়িত হ’তে চায় যৌ’ন মি’লনে- তাই মনোবিজ্ঞান স্বীকার করে যে, পুরু’ষ কিছুটা উৎপীড়ন করতে পারে না’রীকে। কিন্তু প্রহরণ ঠিক শৃঙ্গার নয়-কারণ মি’লনের আগে এর প্রয়োজন নেই।

জল হ্যালিডে এবং নোয়া সোল নামে দুই বিজ্ঞানী এই বিশেষ ছত্রাকটি আবি’ষ্কার করেন।তাঁরা জানিয়েছেন,
এই বিশেষ ছত্রাকের গন্ধ কোনও ম’হিলার নাকে যাওয়া মাত্রই তিনি প্রচণ্ডভাবে উ’ত্তেজিত হয়ে পড়েন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here