বন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ইস্যুতে কথা বলছে অনেকেই পক্ষে-বিপক্ষে নানান কথাবার্তা শোনা যাচ্ছে প্রতিনিয়ত সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা

চাইছে যেকোন মূল্যেই যেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ভাস্কর্য দেশে তৈরি করা হয় এবং এই ভাস্কর্য নির্মাণ এর বিপক্ষে যারা অবস্থান করছে তাদের

মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস কথা বলেছেন এবং তার বক্তব্যগুলো ব্যাপকভাবে সারা ফেলেছে অনলাইনে

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের একটি বক্তৃতা সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

আমার বাপ গেরিলা যুদ্ধ করেছেন রণাঙ্গনে। মুক্তিযোদ্ধা সংগঠন করছে, ট্রেনিং দিছে, নিজে রণাঙ্গনে যুদ্ধ করছে। সুতরাং আমাদের দুর্বল ভাইবো না।

চুপ কইরা বইসা থাকি, সহ্য করি। শুধু দেশের বৃহত্তর স্বার্থে, সংবিধানের স্বার্থ, গণতন্ত্রের স্বার্থে।’জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙা প্রসঙ্গে ডিএসসিসি মেয়র বলেন,

’জিগাইলাম ভাস্কর্য ভাঙছো, কেন ভাঙছো ভাই? বলে ইসলাম। আরে ভাই, ইসলাম কি তোমার একার? মুসলমান কি তুমি একা? খৎনা কি তোমার একার হইছে,

আমার হয় নাই? আরে তোমার বাপ তোমারে পিটাইয়া মাদ্রাসায় পাঠাইছে আর আমি ঘরে বইসা আলিফ, বা, তা, ছা শিখছি। তোমারে জোর করছে বইলা তুমি শিখছ।

আর আমি নিজের ইচ্ছায় শিখছি। তো তুমি আমার চাইতে বড় মুসলমান কোথা থেকে হইলা? নিজের ইচ্ছায় আমি তিনটা ভাষা শিখছি বাংলা, ইংরেজি, আরবি।

তুমি তো শিখছ পিটান খাইয়া। তাইলে তুমি বড় মুসলমান হইলা কিভাবে?’ব্যারিস্টার তাপস বলেন, ’আমার পরিবারের দুজন আধ্যাত্মিক ব্যক্তি

এই ভূখণ্ডে পদার্পণ করেছিলেন। ইসলামের জন্য, ইসলামের প্রচারের জন্য এই ভূখণ্ডে আসছিলেন। আমার পরদাদা দরবেশ শেখ আব্দুল আউয়াল।

ইসলামের জন্য জীবন দিয়ে চলে গেছেন। শেখ বোরহান উদ্দিন, তিনি ছিলেন বিজ্ঞ আলেম, ফরিদপুর এলাকায় আধ্যাত্মিক জগতের স্বনামধন্য আলেমদের একজন।

আর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর যদি ঐশ্বরিক ক্ষমতার না থাকতো তাহলে জাতিকে স্বাধীনতা দিতে পারত না। আর দুই আয়াত মুখস্থ কইরা তুমি হইয়া গেলা বড় আলেম! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙো?’

দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সচিব আকরামুজ্জামান সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বিশেষ

অতিথি হিসেবে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী রেজাউর রহমান, প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন,

প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হক এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও মহিলা কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here