অর্থ আত্মসাতের অ’ভিযোগ উঠেছে ছোটপর্দার এই সময়ের পরিচিত মুখ তৌসিফ মাহবুবের নামে। অভিনেতার বি’রুদ্ধে থা’নায় জিডিও হয়েছে।

শনিবার রাজধানীর হাতিরঝিল থা’নায় জিডিটি করেছেন শামসুন্নাহার কনা নামে এক না’রী।তার অ’ভিযোগ,
মডেল বানানোর কথা বলে

তৌসিফ তার কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা নিয়েছেন। ওই না’রীর বাড়ি কিশোরগঞ্জ জে’লায়।

তিনি বিবাহিতা। তার দা’বি, তৌসিফের মেইন ফেসবুক আইডিতে নক করে তিনি তাকে পান।কথা বলতে বলতেই তিনি এক পর্যায়ে মিডিয়াতে কাজের আগ্রহের কথা জানান।

তাছাড়া তৌসিফকে আমি পছন্দও করতাম। তার মাধ্যমে মিডিয়াতে কাজের সুযোগ হবে ভেবেছিলাম।’ জিডিতে ওই না’রী উল্লেখ করেছেন,

দেড় বছর আগে তার সঙ্গে তৌসিফের পরিচয়। গত ছয় মাস আগে অভিনেতা তার কাছ থেকে একটি বিকাশ নম্বরের মাধ্যমে ২০ হাজার নেন।

এরপর শাহরিয়া হোসেন নামে এক ব্যক্তির সোনালী ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে (অ্যাকাউন্ট নম্বর ৩৪১০০৪৪১) বিভিন্ন সময়ে আরও ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা নেন।

এরপর থেকে তৌসিফ তার স’ঙ্গে আর যোগাযোগ করেননি।তবে নিজের বি’রুদ্ধে ওঠা অ’ভিযোগ পুরোপুরি অ’স্বীকার করেছেন অভিনেতা তৌসিফ।

শামসুন্নাহার কনা নামে কোনো না’রীর সঙ্গে তার পরিচয় নেই বলেও তিনি দা’বি করেন। নিজের বি’রুদ্ধে হওয়া জিডির ব্যাপারে ইতিমধ্যে

তিনি পু’লিশের সাইবার অ’পরাধ বিভাগের কর্মক’র্তাদের স’ঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি জানিয়েছেন, ওই না’রী যদি উপযুক্ত প্র’মাণ দিতে না পারেন,

তবে তার বি’রুদ্ধে মানহা’নির মা’মলা করা হবে। তৌসিফ জানান, ‘গত ১২ জানুয়ারি রাতে চট্টগ্রাম থেকে ফ্লাইটে ঢাকায় নামার পর একটা ফোন কল পাই।

রিসিভ করতেই ওপাশ থেকে এক না’রী প্রশ্ন করেন, ‘ভাইয়া, আপনি তৌসিফ?’ জি বলছি। আমি কনা বলছি।

আমি আসলে ভু’ল তৌসিফের স’ঙ্গে কথা বলে পাঁচ লাখ টাকা দিয়ে ফেলছি। আমি বললাম, আপনি ভু’ল করেছেন, আমার তো কিছু করার নেই।

এই যুগেও এ রকম বোকামি কেন করবেন! তৌসিফের দা’বি, ‘তারপর থেকে কন্টিনিউয়াসলি ওই না’রী আমাকে ফোন দিয়েই যাচ্ছেন।

আমার স’ঙ্গে তিনি কথা বলতে চান। আমাকে বি’ব্রতকর বিভিন্ন মেসেজও পাঠিয়েছেন। আমি তার একাধিক নম্বর ব্লক করে দিয়েছি। এখন শুনি তিনিই আমার বি’রুদ্ধে জিডি করেছেন!’

অভিনেতা বলেন, ‘অনেক ভক্তই আমাদের ফোন করেন। শুরুতে তাকেও আমার ভক্ত ভেবেছিলাম। কিন্তু তিনিই যে আমার সম্মানহা’নি করবেন, এটা ভাবিনি!

শুধু আমি না, আমার অঙ্গনের সবাই ঘ’টনাটি শুনে অবাক হয়েছেন। আমি যে টাকা নিয়েছি এটার প্র’মাণ দিতে হবে তাকে।

বিষয়টা তো এমন না যে মন চাইল বলে ফেললাম। তিনি যদি উপযুক্ত প্র’মাণ না দেন, তবে আমি আ’ইনি ব্যবস্থা নেব।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here