১৬ বছর ব’য়সের এক কিশোরকে ধরে নিয়ে শা’রীরিক মি’লনে বা’ধ্য করেছেন ৩৮ বছর ব’য়সী এক না’রী। তাকে ইতোমধ্যে আ’টকওকরেছে পু’লিশ।

ঘ’টনাটি ঘটেছে ভারতের মুম্বাইয়ের কুরলা এলাকায়। বুধবার মুম্বাই পু’লিশ জানায়, ওই কিশোর পু’লিশের কাছজ`বানব`ন্দী দিয়েছে তাকে অ’পহরণের পর শা’রীরিক মি’লনে বা`ধ্য করেন

৩৮ বছর ব’য়সী ম’হিলা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, গত ২৯ জুন নাসতা করতে বাড়ির বাইরে বেরিয়েছিল ওই কি`শোর।

কিন্তু বিকেল পর্যন্তসে বাসায় ফেরেনি। তার বাবা থানায় একটি নি’খোঁজ ডাইরিও করেন।জ`বানব`ন্দী দিয়েছে তাকে অ’পহরণের পর শা’রীরিক মি’লনে বা`ধ্য করেন ৩৮ বছর ব’য়সী ম’হিলা।

এরপর তার ফোন ও সিম ভে’ঙে ফে’লেন তিনি। কিশোরের অভিযোগ ওই না’রী তাকে শা’রীরিক মি’লনে বা’ধ্য করে।

ইতোমধ্যে ওই ম’হিলাকে কা’রাগারে পাঠানো হয়েছেনিজের বুকের দু’ধ বিক্রি করে ৭ মাসেই কোটি টাকার মালকিন হয়েছেন এই ম’হিলাশি’শুর জন্য মায়ের দু’ধের বিকল্প নেই।

তেমনই ব’য়স্কদের জন্য এই দু’ধ পরিত্যাজ্য। কিন্তু হলে কি হবে! পশ্চিমের শ’রীরচর্চায় জ’ড়িতদের মধ্যে বিশ্বাস,

না’রীর বুকের দু’ধে রয়েছে এমন সব পুষ্টি উপাদান যা অন্য কোনো প্রা’ণীর মধ্যে নেই। আর সেই বিশ্বাসকে পুঁজি করেই সাইপ্রাসের এক না’রী সম্পদের পাহাড় গড়েছেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে জানায়, রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ নামের ২৪ বছর ব’য়সী সাইপ্রাসের

ওই না’রীমাত্র ৭ মাসেই বুকের দু’ধ বিক্রি করে কোটিপতি হয়ে গেছেন। যা কিনেছে বডি বিল্ডারেরা।প্রতিবেদনে বলা হয়,

রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ গত ৭ মাস আগে এক পুত্র স’ন্তানের জ’ন্ম দেন। স’ন্তান হওয়ার পর নিয়মিত বুকের দু’ধ পান করাচ্ছিলেন তিনি।তবে এটাও লক্ষ্য করেন যে,

স’ন্তানকে খাওয়ানোর পরও দু’ধ যথেষ্ট ন’ষ্ট হচ্ছে। তাই ঠিক করেন বাড়তি দু’ধ তিনি বিক্রি করবেন।প্রথমে তিনি অসমর্থ মায়েদের দু’ধ দান করতেপ্রথমে তিনি এই বি’ষয়ে ব্যবসা করার কথা ভাবেননি,

তিনি সেই সমস্ত মায়েদের দু’ধ দান করতেন যারা তাদের বাচ্চাদের দু’ধ খাওয়াতে অসমর্থ ছিল। এরপর কিছু ব্যক্তি তার সাথে দেখা করেন দু’ধ সাপ্লাই দেওয়ার কথা বলে আর রাফায়েলা তাতে রাজি হয়ে যান।

দু’ধের চা’হিদা দেখার পরই তিনি ব্যবসা শুরু করেন, প্রতি লিটার দু’ধের দাম নেন ১ ইউরোরাফায়েলা তার দু’ধের চা’হিদা দেখে এবং

ক্রেতার পরিমাণ বেড়ে যাওয়াতে দু’ধ বিক্রি শুরু করে দেন ই-কমার্স সাইটে। অর্থাৎ তিনি অনলাইনে দু’ধের অর্ডার নেওয়া এবং বিক্রি শুরু করেন।

আর এই দু’ধের মূ’ল্য ধারণ করেন লিটার প্রতি ১ ইউরো, ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৮০ টাকার বেশি।
বডি বিল্ডাররাও নিয়মিত পান করে তার দু’ধদু’ধ বিক্রি করতে গিয়ে রাফায়েলার হয় অন্য অ’ভিজ্ঞতা।

দেখলেন, শি’শুর মায়েদের চাইতে ব্যায়াম বীরদের দু’ধের প্রতি বেশি আ’গ্রহ। শুরুতে পর পর কয়েকজন বডি বিল্ডার তার কাছে বুকের দু’ধ কেনার জন্য যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here