স্বপ্ন ছিলো নায়িকা হবেন। নায়িকা হতে গিয়ে তাকে সর্বস্ব দিতে হবে, এমনটি ভা’বেননি মধ্যবিত্ত পরিবারের তরুণী তমা (ছদ্মনাম)।

ড্যান্স বারে পারফর্ম করে সবাই মি’লে যখন আড্ডা দিচ্ছেন তখনই ঘটে ঘ’টনাটি।আ’ড্ডায় মগ্ন সবাই। বার সংলগ্ন হোটেল ক’ক্ষের সোফায়,

খাটে বসেছেন তিন তরুণী ও পাঁচ যুবক। এরমধ্যে অনুষ্ঠান আ’য়োজক ফরহাদ খানও রয়েছেন। টেবিলে সা’জানো বিয়ার, হুইস্কি, শ্যাম্পাইন। রয়েছে ফ্রাইড চিকেন, সালাত, চিপস ইত্যাদি।

কেউ মদ পান করছেন। কেউ সি’গারেটে সুখ টান দিচ্ছেন। তমা নিরবে বসে আছেন। বারবার অনুরোধ করার পর বি’য়ার হাতে নেন।

অন্যরা এই দৃশ্য দেখে বেশ মজা নিচ্ছিলো।তা’রপর তাকে কোলে তোলে পাশের একটি কক্ষে নিয়ে যান। মু’হূর্তেই দরজাটা বন্ধ হয়ে যায়।

পরদিন ভোর হতেই ঘুম ভাঙ্গে তমার। হতভম্ব হয়ে যান। কম্বলের নিচে ব’স্ত্রহীন তিনি। বুঝতে পারেন স’র্বস্ব লুট হয়েছে তার। যেনো নিজের অ’জান্তেই ঘটেছে সবকিছু।

নিঃশব্দে কাঁ’দছিলেন তমা। পাশে তখনও ঘুমাচ্ছেন ফরহাদ। চট্টগ্রামের ধনাঢ্য ব্যক্তি, পঞ্চাশ বছর বয়সী ফরহাদ।

দী’র্ঘদিন থেকেই সংযুক্ত আরব আ’মিরাতে। এখানে ব্যবসা র’য়েছে তার। এছাড়া ব্যবসা রয়েছে মালয়েশিয়াতেও। হোটেল, বারের ব্যবসা।

নায়িকা হওয়ার ইচ্ছে নিয়েই নাচ শিখেছেন কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী তমা। স্বপ্ন ছিলো নায়িকা হলে সারা দেশের মা’নুষ তাকে চিনবে।

তাকে দেখলেই ভীড় করবে দর্শকরা। ছবি তোলবে। তাকে নিয়ে প্রায়ই সংবাদ প্রকাশ হবে গণ’মাধ্যমে। পা’শাপাশি অর্থ উ’পার্জনও হবে।

সেই স্বপ্ন নিয়েই না’রায়ণগঞ্জের একটি নাচের স্কুলে ভর্তি হন। অল্প দিনেই নাচে পারদর্শী হয়ে উঠেন কলেজ পড়ুয়া এই ছাত্রী।

এরমধ্যেই বিভিন্ন অ’নুষ্ঠানের আমন্ত্রণ আসতে থাকে। পরিচয় ঘটে শোবিজ জগতের তারকাদের সঙ্গে। পা’রফর্ম করেন দেশের বিভিন্নস্থানে।

এরমধ্যেই মুন্না না’মের এ’কজনের সঙ্গে পরিচয়।বিদেশে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নাচ করার প্রস্তাব দেন তিনি। ফরহাদ তার বড় ভাই হন।

প্রতি মাসে বেতন হবে ৭০ হাজার টাকা। ম’ধ্যবিত্ত প’রিবারের মেয়ে তমা। বাবা ক্ষুদে ব্যবসা। দুই বোন, এক ভাই ও মা-বাবা নিয়ে তাদের প’রিবার।

অভাব লেগেই থাকে। মাসে এতগুলো টাকা পেলে মন্দ হয় না। ভেবেই রা’জি হন।বিদেশে যাওয়ার আগেই তাকে দেওয়া হ’য়েছিলো ৫০ হাজার টাকা।

তারপরই তমাসহ একসঙ্গে আরও চার তরুণী দু’বাইয়ের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়েন। এটি কয়েক বছর আগের ঘটনা।

২০১২ সালের আগস্ট থেকে সংযুক্ত আরব আ’মিরাতে বাংলাদেশের পেশাজীবীদের ভিসা দেওয়া বন্ধ । প’র্যটক ভিসা পাওয়াও সহজ নয়।

কিন্তু এই চক্রের ভিসা পাওয়ার বিষয়ে তেমন প্রতিবন্ধকতা নেই। তিন মা’সের পর্যটক ভিসা নিয়ে আরব আমিরাতে যান তারা। শারজায় একটি বারে নাচ করেন তমা। তারপরই ঘটে ঘ’টনাটি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here