আবেদনে সাড়া দিয়েই বড় ধরনের বি’পদে পড়েন ওই স্বা’মী। দা’ম্পত্য জীবনে সু’খ ফিরিয়ে আনতে স্বা’মীর কাছে স্ত্রী’র বিশেষ আবেদন।

নিজের স্ত্রী’র এমন আবেদনে স্বা’মীও সাড়া দেন। এখানে ঘটে যায় বি’পত্তি।তাহলে ঘ’টনাটি খুলে বলা যাক- স্ত্রী’র দেয়া ‘বিশেষ মলমে’ বাড়বে শা’রীরিক সু’খ।

স্ত্রী যদিও শেষ পর্যন্ত বড় ধরনের বি’পদের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন তিনি।ভারতের মহারাষ্ট্রে এই ঘ’টনাটি ঘটেছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী জানা যায়,সম্প্রতি ভারতের মুম্বাই মহারাষ্ট্রের এক যুবক তার স্ত্রী’র বি’রুদ্ধে

ওই মলমটি গো’পনা’ঙ্গে দিলেই শা’রীরিক উত্তে’জনা বেড়ে যায় বলে তাকে (স্বা’মীকে) জানায় তার স্ত্রী’। ওই যুবক স্ত্রী’র কথামতো মলমটি পু’রুষাঙ্গে মেখে নেন।

কিন্তু, এরপরই প্র’চণ্ড ব্য’থা শুরু হয় ওই যুবকের গো’পনা’ঙ্গে। শেষ পর্যন্ত ব্য’থা সর্হ্য করতে না পেরে চিকিৎসকের কাছে যান তিনি।

চিকিৎসার পরে ওই যুবক এখন মো’টামুটি সুস্থ রয়েছেন বলে জানা যায়। ওই স্বা’মীর অ’ভিযোগে আরও বলেন, ওই মলমের মধ্যে বি’ষ মাখানো ছিল।

প্রে’মিকের স’ঙ্গে মিলে তাকে হ’ত্যার পরিকল্পনা করেছিল তার স্ত্রী’।এই অ’ভিযোগের ভিত্তিতে ওই না’রীকে জি’জ্ঞাসাবাদ করছে পু’লিশ।

এ ঘ’টনার পর থেকে প’লাতক রয়েছে ওই গৃ’হবধূর প্রে’মিক। ইতোমধ্যে তার খোঁজে অ’ভিযান চা’লিয়ে যাচ্ছে পু’লিশ।

মি’লনের সময় এই ভুলগুলো করলে আপনার কখনোই সন্তান হবে না

প্রত্যেক বিবা’হিত না’রী স’ন্তানের মুখ দেখতে চায়। কারও গ’র্ভে স’ন্তান আসে না আবার কারও গ’র্ভে স’ন্তান এলেও তা ন’ষ্ট হয়ে যায়।

বার বার এভাবে স’ন্তান ন’ষ্ট হলে মায়ের মনে হতাশা নেমে আসে। গ’র্ভাবস্থার প্রথম তিন থেকে চার মাসের মধ্যেই বেশিরভাগ স’ন্তান ন’ষ্ট হয়।

কেন ন’ষ্ট ৬০ থেকে ৭০ ভাগ ক্ষেত্রে জেনেটিক বা জ’ন্মগত ত্রুটির কারণে গ’র্ভে স’ন্তান ন’ষ্ট হয়ে থাকে।

অন্যান্য কারণের মধ্যে জরায়ুর গঠনগত ত্রুটি, একাধিকবার এমআর-ডিএন্ডসি করার কারণে জরায়ুমুখের সিথিলতা, জরায়ুতে টিউমার, গ’র্ভাবস্থায় ইনফেকশন,

গ’র্ভফুলের ত্রুটি, ডায়াবেটিস, থায়রয়েড স’মস্যা, উচ্চ র’ক্তচা’প, দীর্ঘমেয়াদি অসু’খ, ধূমপান, ম’দপান,

নি’ষিদ্ধ ও’ষুধ, অত্যধিক কফি পান, হরমোনের তারতম্য, ভে’জাল খাদ্য ও প্রসাধ’নী, পরিবেশ দূষণ, স্বা’মী-স্ত্রীর ডিএনএ ত্রুটি ইত্যাদি।

স্বা’মী-স্ত্রীর একই র’ক্তের গ্রুপ কখনোই বাচ্চা ন’ষ্ট হওয়ার কারণ, বন্ধ্যত্ব বা গ’র্ভাবস্থায় জটিলতার জন্য দায়ী নয়।

কি কি পরীক্ষা দরকার : প্রজননতন্ত্রের আল্ট্রাসনোগ্রাফি, হিসটেরোসকপি করে জরায়ু ও জরায়ুমুখের গঠনগত ত্রুটি জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here