শত বাঁধা পেরিয়ে গাজীপুর কালিয়াকৈর নামক এলাকার মাহফিলে আল্লামা মামুনুল হক সাহেব ।শনিবার গাজীপুর জেলায় মাহফিলে আলোচনা করেন

বর্তমান প্রজন্মের তারুণ্যের অহংকার জামিয়া রাহমানিয়ার শাইখুল হাদীস মাওলানা মামুনুল হক।গাজীপুর সিটির অন্তভূক্ত

জামিয়াতুল উলূমিল ইসলামিয়ায় খতমে কোরআন ও খতমে বুখারী উপলক্ষ্যে আয়োজিত ওয়াজ ও দোয়া মাহফিলে আলোচনা করেন বাদ মাগরীব।

গাজীপুর ও তার পার্শবর্তী এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিদেরকে ইসলামি সম্মেলনে যোগদান করেন দলে দলে। এদিন বয়ানে তিনি শুরুতেই উস্তাদ ছাত্রর খেদমত

এখনো সুযোগ পেলে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর জুতা নিয়ে আমরা হাটি, উনার জুতা বহন করাকেও আমরা নিজেদের গৌরব সৌভাগ্য মনে করি।

বয়ানের এক পর্যায়ে তিনি বলেন, একদল লোক বলে জাতীয় ইস্যুতে আমরা আলেম-উলামারা কেনো কথা বলি!

আমাদের কথাগুলো শুধু কান দিয়ে শোনবেননা, আমাদের হ্নদয়ের ব্যাথাগুলোও বুঝার চেষ্টা করবেন । আমরা জাতির কল্যানকামী-উপকারী, অপকারী নই।

তিনি আরো বলেন: আমরা কেনোইবা কথা বলবোনা. আমার বাবারা আমার দাদারা , আমাদের পূর্ববর্তীরা অনেক ত্যাগ-কষ্ট স্বীকার তবে এ ভুখন্ডটাকে মুক্ত ও স্বাধীন করেছিলেন,

স্বাধীন এজন্য করেননি, এদেশের পরবর্তী জেনারেশন নাস্তিক হবে, স্বাধীন করেছিলেন এ জন্য নয় , পরবর্তী জেনারেশন কে খ্রীষ্টান মিশনারীরা টাকা দিয়ে কিনে নিবে।

এ দেশটাতে স্বাধীন করা হয়েছিলো, এ দেশের মুক্ত আসমানের নিচে, মুক্ত জমিনের উপর দাড়িয়ে, উচ্চ কন্ঠে, মুক্ত কন্ঠে জয়োগান গাইবো এক আরশের মালিক আল্লাহর।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা আমাদেরকে সার্কুলার বসিয়ে দেন। এটা গাইতে হবে, ঐটা গাইতে হবে মসজিদের মিম্বরে বসে,আপনারা কি জানেন? আপনার সার্কুলার অনুযায়ী আজকে আমি বক্তব্য দিলে।

কেয়ামতের দিন আমাকে আল্লাহর দরবারে দাড়িয়ে আমাকে জবাব দিতে হবে, কেনো আমি ইসলাম বিরোধী বক্তব্য দিয়েছিলাম।

দোহাই লাগে আমাদের কে এমন কোন নির্দেশ দিবেননা, যে নির্দেশ পালন করতে আল্লাহর নির্দেশ লঙন করতে হয়।

যদি আমাদেরক এমন কোন কথা বলেন আল্লাহর কসম খেয়ে বলছি, আল্লাহর আনুগত্য রক্ষা করার জন্য ,সকলের আনুগত্যকে আমরা দু’ পায়ে মাড়াতে প্রস্তুত।

যারা আল্লামা মামুনুর হক ও আলেম সমাজকে ভাড়াটিয়া মনে করে, তাদের উদ্দেশ্যে মামুনুল হক সাহেব বলেন,

স্বাধীনতা যুদ্ধে বিজয় করার পর দু পাকিস্তানে স্বাধীনতার পতাকা উওোলন করেছিলেন মামুনুল হকের বাপের দুই উস্তাদ । একটা নাস্তিক ও ভাষা আন্দোলনের শরীক হয়নি।

এছাড়াও তিনি আলেমওলামাদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আলেম ওলামারা যারা আমাদের উপর বিরক্ত, তাদের কাছে বিনীত ভাবে অনুরোধ,

মাফ চাই মাফ চাই, আমি ভাড়াটিয়া হিসেবে কারো সাথে আচরন করতে পারবো না।তিনি আরো বলেন, জীবন যেতে পারে যতো দিন ঘাড়ের উপর কল্লা আছে ,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here