আজ আপনাদের এমন এক বি’ষয়ে জানাতে চলেছি যেটি মানুষের এক স্বাভাবিক শারীরবৃত্তিয় প্রক্রিয়া। অথচ এই বি’ষয়ে কথা বলতে মানুষ লজ্জা পায়, নাক সিটকোয়।

হয়তো ভাবছেন যে কিসের কথা বলছি… আসল বি’ষয়টি হল পাদ। পাদ কিন্তু সবাই দেয় কিন্তু পাদের ব্যাপারে কথা বলতে কেউ চায় না। এই ব্যাপারে কথা বললে লোকে মুখ চে’পে হাসে।

তাই বলে কি মানুষ পাদ দেয়না ? সকলেই দেয়। কেউ জোড়ে দেয়, কেউ আসতে দেয়। ছেলে মে’য়ে নির্বিশেষে দেয়। পাদ হল মানুষের শ’রীরের একটি স্বাভাবিক ব্যাপার।

তাতে কোন লজ্জা নেই, কিন্তু লজ্জা হল সবার সামনে আওয়াজ করে পাদ দেওয়া। সবার সামনে স্বশব্দে গন্ধযুক্ত পাদ দিলে তখন পড়তে হবে লজ্জার মুখে। তখন আপনি হতে পারেন হাসির পাত্র।

পেট ফেঁপে পেটের মধ্যে যে গ্যাস উৎপন্ন হয় তাতে থাকে হাইড্রোজেন সালফাইড। যা পেটের মধ্যে উৎপন্ন হয়ে বাজে গন্ধের সৃষ্টি করে।

এই গন্ধের উপকারিতা হল এটি আপনাকে হা’র্ট অ্যা’টাক, স্ট্রোক, স্মৃ’তি হা’রানো ইত্যাদি রো’গ থেকে রক্ষা করে।

আমরা যখন সুস্থ থাকি, অর্থাৎ যখন আমাদের শ’রীর ঠিকমত কাজ করে তখন আমাদের শ’রীরের কোষগু’লি

নিজের জন্য হাইড্রোজেন সালফাইড তৈরী করে যা কোষের মাইট্রোকন্ড্রিয়া অর্থাৎ কোষের কার্যক্ষ’মতা বজায় রাখে।

এই গ্যাস ছাড়া আমাদের দে’হের সব কোষ মা’রা যেতে পারে। অ’ক্ষম হয়ে যেতে পারে। গবে’ষণা বলে এই হাইড্রোজেন সালফাইড আপনার শ’রীরের সমস্ত রো’গ ব্যাধি দূরে রাখবে, আপনার শ’রীর সুস্থ থাকবে।

বর্তমানে বিজ্ঞানীরা কৃত্রিম ভাবে এক যৌগ বানিয়েছেন যা থেকে হাইড্রোজেন সালফাইড গ্যাস উৎপন্ন হয়। যা আপনার এবং আপনার স’ঙ্গীর জন্য যে কতটা উপকারী তা আপনি ভাবতেও পারবেন না।

মলত্যাগ করার সময়ও এই গ্যাস শ’রীর থেকে নির্গত হয়। তাই আপনার স’ঙ্গী যদি আপনার বায়ু ত্যাগ নিয়ে কোন আপত্তি বা অভিযোগ করে তাহলে তাকে বুঝিয়ে বলুন এই গ্যাস তার জন্য ঠিক কতটা উপকারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here