দেশের প্রতিটি মাদ্রাসায় জাতীয় সংগীত পরিবেশন বাধ্যতামূলক করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে কুষ্টিয়া পৌর অডিটোরিয়ামে জঙ্গি, সন্ত্রাসবাদ ও নাশকতামূলক কার্যক্রম প্রতিহতকরণের লক্ষে মসজিদের ঈমাম ও ওলামাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এই দেশে বাস করতে হলে সংবিধান মেনে চলতে হবে। সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।
মসজিদের ঈমামদের উদ্দেশে তিনি বলেন,

ভাস্কর্য নিয়ে বিভিন্ন অপপ্রচার ও ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি তৈরি করা হচ্ছে, আপনারা মসজিদে খুতবার সময় এ ব্যাপারে পরিস্কারভাবে বলবেন ইসলামে ভাস্কর্য সাংঘর্ষিক নয়,

কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জ, কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এস.এম তানভীর আরাফাত ও কুষ্টিয়া পৌর মেয়র আনোয়ার আলী প্রমুখ।

ক্ষমতায় গেলে অপসারণ করা হবে বাহাত্তরের সংবিধান-সব ভাস্কর্য: মামুনুল হক

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবি’রোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতা মামুনুল হকের দাবি অনুযায়ী, ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র বিনির্মাণের উদ্দেশ্যে কেউ মুক্তিযু’দ্ধ করেনি।

বাহাত্তরের সংবিধানের মাধ্যমে এসব চেতনা জনগণের ও’পর চা’পিয়ে দেয়া হয়েছে। তারা কোনদিন ক্ষমতায় যেতে পারলে অপসারণ করা হবে দেশের সব ভাস্কর্য।

প্রতিক্রিয়ায় লেখক-গবেষক মারুফ রসূল বলেছেন, ইসলামের দোহাই দিয়ে একাত্তরে ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দলগুলো যেভাবে বাংলাদেশের বি’রোধিতা করেছে, একই কায়দায় কথা বলছেন মামুনুল।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বি’রোধিতা গড়িয়েছে ভা’ঙচুর পর্যন্ত। কুষ্টিয়ায় ভাস্কর্য ভা’ঙচুরে জ’ড়িত থাকার দায়ে গ্রে’প্তার চার মাদ্রাসা ছাত্র-শিক্ষকের বরাতে পুলিশ বলেছে,

হেফাজতে ইসলামের আমীর জুনায়েদ বাবুনগরী, যুগ্ম মহাস’চিব মামুনুল হক ও ইসলামী আন্দোলনের নেতা ফয়জুল করিমের বক্তব্যে অনুপ্রা’ণিত হয়ে ভাস্কর্য ভা’ঙচুর করেছে তারা।

বি’রোধিতা করলেও ভাস্কর্য ভা’ঙচুর করতে বলেননি বলে মামুনুলের দাবি। তিনি বলেন, কেউ যদি আমার বক্তব্যকে ভু’লভাবে নেয় বা ভু’লভাবে ব্যাখ্যা করে বা পর্যালোচনা করে তাহলে তার দায় আমি নিবো না।

লেখক ও গবেষক মারুফ রসূল বলেন, ব্লগার রাজীব হায়দারকে হ’ত্যা করার পর হ’ত্যাকারীরা বক্তব্য দিয়েছিল যে জসীম রেহমানি এর বয়ান শুনে তারা তাকে হ’ত্যা করেছে।

আ’দালত কিন্তু তখন জসীম রেহমানিকে শা’স্তি দিয়েছিল। তাহলে এই ক্ষেত্রে মামুনুল হকের বক্তব্যের জন্য তাকে গ্রে’প্তার করা উচিত। এটাকে আমার রাষ্ট্রের রাজনৈতিক দুর্বলতা মনে হচ্ছে।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের মহাস’চিবের দায়িত্বে থাকা মামুনুল বলেন, কোনদিন ক্ষমতায় যেতে পারলে দেশের সব ভাস্কর্য অপসারণ করা হবে। সংবিধান হবে ইসলামের ভিত্তিতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here