বিয়ের পর সংসারে সন্তান-সন্তুতি আসবে, এটাই তো নিয়ম। সেটি পরিকল্পিতভাবে আসুক সেটিই সবাই চায়। কিন্তু অনেক দাম্পত্য জীবনে সব কিছু পরিকল্পিতভাবে হয়ে উঠে না।

কেউ কেউ সন্তান না চাইলেও নিজের অজান্তে গ*ধারণ হয়ে যায়। আবার অনেকে সন্তান চেয়েও বছরের পর বছর কাটিয়ে দেন কিন্তু সোনামুনির মুখ দেখেন না।

তাঁরা প্রত্যাশামাফিক সন্তানের বাবা-মা হতে পারেন না। আমা’র কাছে কিছু রোগী আসেন, যাদের বিয়ে হয়েছে মাত্র এক মাস।

তাদেরকে শ্বশুর শ্বাশুড়ী নিয়ে আসেন।তাদের অ’ভিযোগ, পুত্রবধু সন্তানের মা হতে পারছেন না।আমি তখন বলি, বিয়ে হয়েছে মাত্র একমাস।

আমা’র পরামর্শ হচ্ছে সন্তান নিতে চাইলে পুরো এক বছর স্বামী-স্ত্রীর একসঙ্গে থাকতে হবে। সপ্তাহে অন্তত তিন থেকে চারবার মেলামেশা করবেন।

এরপরও যদি গর্ভে সন্তান না আসে তাহলে ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। কিন্তু যদি এমনটি হয়, স্বামী বিয়ের এক মাসের মাথায় বিদেশ চলে গেছেন।

একবছরের মাথায় যদি মেয়েটি এসে বলে আমি মা হচ্ছি না কেন, তাহলেও হবে কিভাবে?আমা’দের দেশের প্রেক্ষাপটে

এখন আম’রা মেয়েদের বেলায় ২০- এর পরে ও ছেলেদের বেলায় ২২- এর পরে বিয়ে করতে বলি। বিয়ের পর মেয়েদের বেলায় যদি প্রথম সন্তানটা ৩০ বা ৩২ বছরের মধ্যে হয়

তাহলে সেটা নিরাপদ গ*ধারণ হয়।পুরুষরা কখন বাবা হবেন তা নিয়ে বয়সের কোন বাধ্যবাধকতা নাই। একজন পুরুষ বৃদ্ধ বয়সেও সন্তান জন্মদানে সক্ষমতা রাখে।

তবে মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রথম সন্তানটা ৩০-এর মধ্যে নেওয়া ভাল। মনে রাখা উচিত, ৩৫ বছরের পরে মা হওয়া ঝুঁকিপূর্ণ।

এই ১৪টি অভ্যাস গড়ে তুলতে পারলেই আপনি চিরতরুণ থাকবেন চিরতরুণ হতে কে না চায়? আপনিও হতে পারেন।

তবে অভ্যাসগত কিছু পরিবর্তন আনতে হবে আপনাকে। সঠিকভাবে ১৪টি অভ্যাস গড়ে তুলতে পারলেই আপনি চিরতরুণ।

এবার জেনে নিন সেই ১৪টি অভ্যাস :খুব ধীরে ধীরে সকালে ঘুম থেকে উঠে চার গ্লাস পানি খাওয়ার অভ্যাস করুন। এরপর বাথরুমে যান।

পানি খাওয়ার নাম হচ্ছে হাইড্রোথেরাপির জলচিকিৎসা।মূলত এটি হচ্ছে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার বছরের প্রাচীন ভারতীয় চিকিৎসা।

আধুনিক বৈজ্ঞানিক পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে- ঘুম থেকে উঠে ধীরে ধীরে চার গ্লাস পানি খাওয়ার অভ্যাস করলে প্রায় ৩৬ ধরনের রোগ হয় না এবং হলেও সেরে যায়।

বাথরুম থেকে ফিরে এসে আরও এক গ্লাস পানি খান এবং তারপর খান দুধ ছাড়া খুব হালকা এককাপ চা। আপনার ওজন বেশি হলে চিনি খাওয়া ছেড়ে দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here