পিলখানা হ’’ত্যাকাণ্ডের দিনকে জাতীয় শো’ক দিবস করার দাবি জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাস’চিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানান তিনি।

যথাযোগ্য মর্যাদায় ২৫ ফেব্রুয়ারি পিলখানা সদর দপ্তরে সে’না হ’’ত্যা দিবসটিকে জাতীয় শো’ক দিবস ঘোষণার দাবি জানিয়ে রিজভী আহমেদ বলেন,

বিএনপি রাষ্ট্রক্ষ’মতায় আসীন হলে ২৫ ফেব্রুয়ারিকে জাতীয় শো’ক দিবস হিসেবে ঘোষণা করবে এবং এই নৃ’শংস হ’’ত্যাকাণ্ডের নিরপেক্ষ ত’দন্ত করে পুনর্বিচারের উদ্যোগ নেবে।’

এর পূর্ণাঙ্গ কোনো ত’দন্ত এখনো জাতির সামনে প্রকাশ করা হয়নি। বিশেষ করে সে’নাবা’হিনী যে ত’দন্ত করেছিল, সেই ত’দন্ত এখনো আলোর মুখ দেখেনি।

ফলে স্বাভাবিকভাবে জাতির সামনে প্রশ্ন থেকেই গেছে এই ভ’য়াবহ র’ক্তাক্ত ঘ’টনার পেছনে মূ’ল কারা ছিল, পরিকল্পনাকারী কারা ছিল, কারা লাভবান হয়েছে?

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাস’চিব বলেন, আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য খুলনায় বিএনপির মেয়র প্রার্থীদের

সমাবেশের প্রস্তুতির প্রাক্কালে ব্যাপকভাবে খুলনা মহানগরীতে পু’লিশি হা’মলা ও হ’য়রানি শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে যুবদল নেতা সুমন, সিরাজুল ইসলাম,

আলাউদ্দিন, খায়রুজ্জামান টুকু, হারুন মোল্লা, বিএনপি নেতা শাহজাহান শেখ, জাহিদুল ইসলাম, তাঁতীদল নেতা মাসুম,

ছাত্রদল নেতা শামীম আশরাফ, আসাদুজ্জামান আসাদ, বাবুলসহ অসংখ্য নেতাকর্মীকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ।

এ সময় পু’লিশি হা’মলা ও নেতাকর্মীদেরকে গ্রে’প্তারের ঘ’টনার তীব্র নি’ন্দা ও প্র’তিবাদ জানান রিজভী। একই স’ঙ্গে অবিলম্বে তাঁদের নিঃশর্ত মুক্তির জো’র দাবি জানান তিনি। সুত্রঃ কালের কণ্ঠ

মন্ত্রী দিয়ে ফোন করাবেন না, কারো প্রভাবে কাজ হবে না: হাইকোর্ট
নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইনান্সিয়াল সার্ভিসেস (পিএলএফএস) লিমিটেডের ঋ’ণগ্রহীতাদের সতর্ক করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আ’দালত বলেছেন, আপনারা পিপলস লিজিং থেকে টাকা নিয়েছেন। টাকা নিয়ে আপনারা বসে আছেন। এই টাকা চোর বাটপারদের টাকা না।

এটা জনগণের টাকা। আর যারা টাকা রেখেছে সেই সব সাধারণ মানুষ রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে। আগে টাকা দিন।

প্রতিষ্ঠানটিকে বাচাঁতে হবে। আগে টাকা দিবেন তারপর আলোচনা, দরকষাকষি। টাকা না দিলে জে’লে যেতে হবে।

আরেফীন শামসুল আলামীন নামের একজন ঋ’ণগ্রহীতা আ’দালতে বলেন, আমার জন্য একশ ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ ছিল।

কিন্তু পিপলস লিজিং আমার কাছে ৩৮৪ কোটি টাকা দাবি করছে। আমি প্রতিমাসে ২০ লাখ টাকা কিস্তি দিতাম। গত ২৪ মাস কোনো কিস্তি দেইনা।

এসময় আ’দালত এই ব্যবসায়ীর আত্মীয়স্বজনের পরিচয় তুলে ধরে বলেন, মন্ত্রী দিয়ে ফোন করাবেন না। মন্ত্রী বা কারো প্রভাবে কাজ হবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here