শি’শুশিল্পী থেকে নায়িকা হয়ে দর্শকের সামনে আসতে চলেছেন প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। তার প্রথম সিনেমা হিসেবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘তুমি আছো তুমি নেই’। ১২ মার্চ মুক্তি পাবে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত এই ছবিটি।

সম্প্রতি এর ট্রেলার প্রকাশ হলে সেটি ব্যাপকভাবে সমালোচনার শি’কার হয়। এতে বিব্রত হন দীঘিও। তিনিও সাক্ষাৎকারে গণমাধ্যমে দাবি করেন, ‘ছবিটি বেশ মানহীন। সিনেমাটি চলবে না।’

এই মন্তব্যের জন্য এবার ১ কোটি টাকার মানহানি মা’মলার মুখে পড়তে যাচ্ছেন দীঘি। মা’মলাটি করবেন তারই সিনেমার পরিচালক ঝন্টু। ইউটিউবে এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে ছবির নায়িকা হয়েও সমালোচনা করার জন্যই দীঘির বি’রুদ্ধে এ হু’মকি দিয়েছেন পরিচালক।

ওই সাক্ষাৎকারে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু বলেন, ‘আজ-কালকের মধ্যে হাইকোর্ট থেকে ওর (দীঘি) কাছে উকিল নোটিশ চলে যাবে। আমি ওকে ছাড়ব না।’

আমি ওকে ছাড়ব না। যেভাবেই হোক আমি ওকে ছাড়ব না। দীঘি যখন বলেছে, ‘সিনেমাটি চলবে না’ তখন পরিচালক হিসেবে আমারও মানহানি হয়েছে। আমি মানহানি মা’মলা করব দীঘি ও তার মামার নামে।

কারণ শুটিং, ডাবিংয়ের সময় দীঘি এ সিনেমার প্রশংসা করেছে, এখন কেন সে সমালোচনা করছে। ডেফিনেটলি দেয়ার ইজ সামথিং রং।’

উ’ত্তেজিত কণ্ঠে এ নির্মাতা এসময় আরও বলেন, ‘আমি দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। বাংলাদেশে আরেকটি নেই। উপমহাদেশে আমার মতো একজন চলচ্চিত্রকার নেই। উপমহাদেশে সবচেয়ে বেশি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছি আমি।

আমি দুই কোটি টাকা নিয়ে সিনেমা বানিয়েছি, ২০ লাখ দিয়েও বানিয়েছি। চলচ্চিত্র মেধা দিয়ে তৈরি হয়, টাকা দিয়ে না।’

এ বি’ষয়ে যোগাযোগ করে দীঘিকে না পাওয়া গেলেও তার বাবা অভিনেতা সুব্রত বলেন, ‘এসব নিয়ে কথা বাড়াতে চাই না।’

মমতাকে নিয়ে বি’স্ফো’রক মন্তব্য শ্রাবন্তীর

ভা’রতের শাসক দল বিজেপিতে যোগদান করেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে নিয়ে বি’স্ফো’রক মন্তব্য করে বসলেন টালিউডের জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী শ্রাবন্তী।

রোববার এক টুইটবার্তায় অ’ভিনেত্রী দাবি করেন, ‘নিজেদের টিকিয়ে রাখতে সবসময়ই ক্ষ’মতার অ’পব্যবহার করে থাকেন’ মমতা ও অ’ভিষেক!

হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন শ্রাবন্তী। ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের আগেও এ অ’ভিনেত্রীর গেরুয়া শি’বিরে নাম লেখানোর গুঞ্জন উঠেছিল। অবশেষে একুশের বিধানসভা ভোটের আগে পদ্মশি’বিরে শ্রাবন্তী।

এ নায়িকার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। এর মধ্যেই রাজনীতিতে যোগ দিয়ে সেই বিতর্ককে আরও খানিকটা বাড়িয়ে দিয়েছেন।

বিজেপিতে নাম লেখানোর পর থেকেই নানা সময়ে শাসক দলের নীতি-আদর্শ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন শ্রাবন্তী। তবে এতদিন সরাসরি মমতা ব্যানার্জির বি’রুদ্ধে ক্ষো’ভ প্রকাশ না করলেও গতকাল রোববার তাকে আ’ক্রমণ করে বসেন শ্রাবন্তী।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্রিগেড সমাবেশের দিন টুইটারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও তার ভাইপো অ’ভিষেক ব্যানার্জিকে উদ্দেশ্য করে শ্রাবন্তী লেখেন—‘বেশিরভাগ নেতা, মন্ত্রী ও সম’র্থক তৃণমূ’ল থেকে বেরিয়ে আসছে পিসি ও ভাইপোর রাজনীতির জন্য। নিজেদের টিকিয়ে রাখতে সবসময়ই ক্ষ’মতার অ’পব্যবহার করে থাকেন তারা দুজন।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here