এনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দু’র্নী’তি’র দা’য়ে দ’ণ্ডি’ত সা’জা স্থ’গি’ত করে মু’ক্তির মেয়াদ পূর্বের শ”র্তে আরও ৬ মাস বাড়ানোর আবেদন প্রধানমন্ত্রীর কাছে পা’ঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী তা অনুমোদন দিলে

স্ব’রাষ্ট্র মন্ত্র’ণালয়ের সু’র’ক্ষা সেবা বিভাগ থেকে এ বি’ষয়ে প্রজ্ঞা’পন জা’রি করা হবে। এ বি’ষয়ে স্ব’রাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান গতকাল বুধবার একটি জাতীয় গণমা’ধ্যমকে বলেন, খালেদা জিয়ার সা’জা আরও ছয়

মাসের জন্য স্থ’গি’ত রেখে মু’ক্তি দেওয়ার প্র’স্তাব প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। আইন ম’ন্ত্রণালয়ের মতা’মতও প্র’স্তা’বের স’ঙ্গে পাঠানো হয়েছে। দু-একদিনের মধ্যেই প্র’স্তা’বটি অনুমোদন হয়ে এলে সু’রক্ষা সেবা বিভাগ থেকে এ বি’ষয়ে প্রজ্ঞাপন জা’রি করা হবে।

তিনি বলেন, ফৌ’জদা’রি কার্য’বিধির ৪০১ ধা’রার উ’পধা’রা ১-এ খালেদা জিয়ার সা’জা ছয় মাসের জন্য স্থ’গি’ত রেখে তাকে দেশের অ’ভ্য’ন্তরে বিশে’ষা’য়িত চি’কি’ৎ’সা নেওয়ার শ’র্তে এ মু’ক্তি দেওয়া হবে।

আগের মতো মু’ক্তির বর্ধিত মেয়াদে খালেদা জিয়া নিজ বাসায় থেকে তার চি’কি’ৎসা গ্রহণ করবেন। একইস’ঙ্গে এই সময়ে তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না বলে শ’র্ত দেয়া হয়েছে। তবে দেশের মধ্যে যে কোনো হাস”পাতা’লে গিয়ে বেগম জিয়া চি’কি’ৎসা নিতে পারবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

‘এর আগে গত ২ মার্চ স্ব’রা’ষ্ট্র ম’ন্ত্রণালয়ে খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার এ আবেদন জমা দেন। আবেদনের পর স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আবেদনপত্রে স্বাক্ষর করে সেটি পাঠিয়ে দেন স’চিবের দফ’তরে।

জিয়া অরফা’নেজ ট্রা’স্ট দু’র্নী’তি মা’ম’লায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রু’য়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কা’রাদ’ণ্ড দেন বকশীবাজার আলিয়া মা’দরাসা মাঠে স্থা’পিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আ’দা’লত।

রা’য় ঘোষ”ণার পর খালেদা’কে পুরান ঢাকার নাজিমউ’দ্দিন রোডে অ’ব’স্থিত পুরোনো কেন্দ্রীয় কা’রাগা’রে ব’ন্দি রাখা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর এ মা’ম’লায় আ’পিলে তার আরও পাঁচ বছরের সা’জা বাড়িয়ে ১০ বছর ক’রেন হা’ইকো’র্ট। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যা”রিটে’ল ট্রাস্ট দু’র্নী’তির মা’ম’লায় খালেদা জিয়াকে ৭ বছরের স’শ্র’ম কা’রা’দ’ণ্ডে’র আ’দেশ দেন একই আ’দা’লত।

রায়ে ৭ বছরের কা’রা’দ’ণ্ড ছাড়াও খালেদা জিয়াকে ১০ লাখ টাকা জ’রি’মা’না করা হয়। জ’রি’মা’না অ’না’দা’য়ে আরও ৬ মাসের কা’রাদ’ণ্ডে’র আ’দেশ দেন।

কা’রা’ন্ত’রী’ণ অব’স্থা’য়ই চি’কি’ৎসা’র জন্য বঙ্গব’ন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হা’স’পা’তালে নেয়া হয় খালেদা জিয়াকে।

প্রয়োজনীয় পরীক্ষা শেষে তাকে আবারও কা’রা’গা’রে পা’ঠানো হয়। এভাবে কয়েক দফা”য় তাকে ‘চিকিৎ’সার জন্য হাস”পাতালে এবং হা’পা”তাল থেকে কা’রা’গা’রে নেয়া হয়। মা’ম’লা’ দু’টি ষ’ড়য’ন্ত্রমূ’লক বলার পাশাপাশি বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়াকে চিকি’ৎ’সার জন্য মু’ক্তির দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

এ ক্ষেত্রে তারা আ’দাল’তেও আ’ইনি ল’ড়া’ই’ চা’লিয়ে যা’চ্ছিলেন। কিন্তু বরাবরই বি’ফ’ল হতে হয়েছে বিএনপির নেতৃত্বকে। এর মধ্যে বিশ্বজু’ড়ে ক’রো’নাভাই’রা’সের প্রা’দু’র্ভা’ব দেখা দিলে বিএনপি নেতারা খালেদার মুক্তির’ জো’র ‘দাবি তোলেন।

পরিবারের পক্ষ থেকেও বেগম জিয়ার মু’ক্তি’র জন্য স’রকারের কাছে আবেদন জানানো হয়। সেই প্রে’ক্ষাপ’টে নি’র্বাহী আ’দেশে দ’ণ্ড’ স্থ’গি’ত করে কা’রা’ব’ন্দি খা’দা জিয়াকে স’রকার শ’র্তসা’পে’ক্ষে ৬ মাসের জন্য মু’ক্তি দেয়।

প্রথম দফা মুক্তি’র মেয়ার শেষ হয়ে আসলে গত বছরের ২৫ আগস্ট বেগম জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে ‘স্থায়ী ‘মুক্তি চেয়ে আবে’দন করা হয়। আবেদন বিবেচনা করে স’রকার দ্বি’তীয় দফা’য় গত ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ মাসের জন্য তার মু”ক্তির মেয়া’দ বৃ’দ্ধি করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here