মোবাইল ফোন বা মুঠোফোন তারবিহীন টেলিফোনবিশেষ। মোবাইল অর্থ ভ্রাম্যমাণ বা স্থানান্তরযোগ্য। মোবাইল সহজে যেকোনো স্থানে বহন ও ব্যবহার করা যায় বলে এ বিস্ময়কর প্রযুক্তিকে‘মোবাইল’নামকরণ করা হয়েছে।

এতে কোনো স’ন্দে’হ নেই যে মোবাইল ফোনের অনেক ইতিবাচক দিক আছে। মানুষের মধ্যে সহজ যোগাযোগ ও দূরত্ব ঘুচিয়ে আনতে মোবাইল ফোনের জুড়ি নেই।

লেনদেন, ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে শুরু করে বিশ্বকে জানা ও বিশ্বের স’ঙ্গে যোগাযোগ রাখার অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে মোবাইলের জনপ্রিয়তা দিনদিন বাড়ছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও মানুষের জীবনে বহুমাত্রিক অকল্যাণ বয়ে আনছে এই যন্ত্র।

সুস্থ্য থাকার জন্য আমরা সবার আগে বেডরুম বা ঘর পরিষ্কার করে থাকি। সেই তালিকায় থাকে রান্নাঘরও। সুস্থ্য থাকতে গেলে অবশ্যই ঘর-বাড়ি ও রান্না ঘর পরিষ্কার রাখা প্রয়োজন।

মুঠোফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারে শা’রীরিক ও মা’নসিক নানা সমস্যায় পড়ছেন ব্যবহারকারীরা। শুধু শিক্ষার্থীদের জন্য নয়, মোবাইল ফোনে আসক্ত যেকোনো ব্যক্তি বড় ধরনের স্বাস্থ্যঝুঁ’কিতে থাকে।

গুগলকে ৫০০ কোটি ডলার জরিমানা
গুগলের বি’রুদ্ধে ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত ত’থ্য সংগ্রহের অভিযোগ উঠছিল দীর্ঘদিন থেকেই। এবার প্রমাণ মিলতেই বড় জরিমানা গুণতে হলো গুগলকে। ইতিমধ্যেই ৫০০ কোটি ডলার জরিমানার মুখে পড়েছে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম সংস্থা গুগল।

ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করে ওয়েবসাইট দেখার সময় ব্যবহারকারীর ত’থ্য সংগ্রহ করতে পারে গুগল। এমনকি নিজের ব্যক্তিগত ত’থ্য আড়ালে রাখতে ইচ্ছুক ব্যবহারকারী যদি নিজের ত’থ্য প্রকাশ করতে না চান, তবে তাকে ‘ইনকগনিটো মোড’ ব্যবহার করতে বলা হয়। এবার সেই ‘ইনকগনিটো মোড’-এও ইনফরমেশন ট্র্যাকিংয়ের অভিযোগ উঠল গুগলের বি’রুদ্ধে।

অতএব মা’মলা এড়ানোর কার্যত আর কোনো পথই খোলা নেই গুগলের কাছে। এদিকে ইনকগনিটো মোডেও ব্যবহারকারীর ও’পর নজর রাখছে মা’র্কিন প্রতিষ্ঠান গুগল।

এই অভিযোগে গত বছরের জুনে তিন ব্যবহারকারী গুগলের বি’রুদ্ধে মা’মলা করেন। তাদের আরও অভিযোগ ব্যবহারকারীদের ত’থ্য সংগ্রহ করে ঘুরপথে ব্যবসা করছে গুগল। এদিকে গুগল অবশ্য ওই মা’মলা খারিজ করে দেয়ার আবেদন জানিয়েছিল।

কিন্তু বিচারক লুসি কোহ প্রতিষ্ঠানটির সে আবদারে সাড়া দেননি। বিচারক কোহ বলছেন, ইনকগনিটোর গোপনতা মোড সক্রিয় থাকলেও গুগল যে ব্যবহারকারীদের ডেটা সংগ্রহ করছে, সে ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানটি তাদের ‘অবহিত করেনি’। এই মা’মলায় অভিযোগকারীদের পক্ষে ৫০০ কোটি ডলার ক্ষ’তিপূরণ চাওয়া হয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here