সুরের সম্রাজ্ঞী শ্রেয়া ঘোষাল, আট থেকে আশি প্রত্যেকেই তার গানে পা’গল। আর সেই শ্রেয়া এখন হতে চলছেন মা। ধীরে ধীরে শ’রীরের মধ্যে বেড়ে উঠছে নতুন প্রা’ণের স্পন্দন।

গায়িকা নিজেই কিছুদিন আগে সেই খুশির খবর ভাগ করে নিয়েছেন নিজের অনুরাগীদের সাথে। আর তারপর থেকেই উঠে আসছে গায়িকার জীবনে অনেক খুঁটিনাটি ত’থ্য।

আর তেমনই উঠে এলো শ্রেয়ার প্রেম কাহিনী। প্রায় দশ বছর ডেট করার পর নিজের বহুদিনের পুরনো বন্ধু শিলাদিত্যকে বিয়ে করেন গায়িকা। তবে তাদের ভালোবাসা নিবেদনের গল্পটা ছিল খুবই মজার।

একটি সাক্ষাৎকারে নিজেই সেই গল্প শুনিয়েছিলেন শ্রেয়া, শিলাদিত্য সাথে গোয়াতে একটি অনুষ্ঠান বাড়িতে গিয়েছিলেন তিনি, আর সেই সময়ে হঠাৎ শিলাদিত্য তাকে প্রপোজ করেন, তবে শিলাদিত্য প্রথমটায় রীতিমতো ভ’য়ে দেখেই প্রপোজ করেছিলেন শ্রেয়া কে,

পশ্চিমবঙ্গের ভোটের পর তিস্তা চুক্তি বাস্তবায়নের ‘আশ্বাস মিলেছে’

পশ্চিমবঙ্গের ভোটের পর তিস্তা চুক্তি বাস্তবায়নের ‘আশ্বাস মিলেছে’স’চিব কবির বিন আনোয়ার

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের পর তিস্তা চুক্তি বাস্তবায়নের বি’ষয়ে সি’দ্ধান্ত নেয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছে ভারত। পানিসম্পদ ম’ন্ত্রণালয়ের সিনিয়র স’চিব কবির বিন আনোয়ার এ ত’থ্য জানিয়েছেন।

ভারতের সাথে পানিসম্পদ বি’ষয়ক স’চিব পর্যায়ের বৈঠকের বিস্তারিত নিয়ে বুধবার (১৭ মার্চ) হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

তিস্তা চুক্তির বি’ষয়ে এক সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কবির বিন আনোয়ার বলেন, ‘ভারত বলেছে, তাদের যে আগের অবস্থান অর্থাৎ ২০১১ সালে আমাদের প্রধানমন্ত্রী ও ভারতের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে যে চুক্তি হয়েছিল সেটাই রয়েছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় স’রকার এবং পশ্চিমবঙ্গ স’রকারের মত পার্থক্যের কারণে বি’ষয়টি আ’টকে আছে। তারা বলেছে, পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের পরে এটার বাস্তবায়ন করা হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘২০১৯ সালের আগস্টে বাংলাদেশ-ভারতের স’চিব পর্যায়ের বৈঠক হয়েছিল। গত বছর ভারতীয় স’চিবকে আমরা নিমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। কিন্তু করোনার কারণে আমরা এক বছর পিছিয়ে যাই।

এই বৈঠকটি আবার আমাদের গতকাল নয়াদিল্লীতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিস্তাসহ আমাদের সবগুলো অভিন্ন নদী নিয়ে আলোচনা হয়েছে। খুব পজিটিভ ও ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে।’

স’চিব বলেন, ‘কুশিয়ারা নদীর পানিবণ্টন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা যে পাম্প হাউজ নির্মাণ করেছি, প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমিতে আমাদের চাষাবাদ হবে। সেই পানি সরবরাহের বি’ষয়ে আলোচনা হয়েছে।

মহানন্দা নদীতে পানি কমে গেছে, সেটা নতুন করে আলোচনা করেছি। আশা করছি মহানন্দা নদীর পানির বি’ষয়টিও একটি জয়েন্ট সার্ভে (জরিপ) করে, আমাদের দুই দেশের যে ইঞ্জিনিয়াররা রয়েছেন তাদের নিয়ে যৌথ সার্ভে করে দেখা হবে পানির অবস্থা। বাংলাদেশ অংশে পানি কমে যাওয়ায় আমরা বি’ষয়টি তুলেছি।’

কবির বিন আনোয়ার বলেন, ‘তাদের পশ্চিমবঙ্গ ও আসামে নির্বাচনের কারণে এই মুহূর্তে কোনো চুক্তি স্বাক্ষর বা পারস্পরিক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর নিয়ে তারা বলছে, নির্বাচনের পর তারা করতে স’ক্ষম হবেন।’

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার নয়াদিল্লীতে যৌথ নদী কমিশন কাঠামোর আওতায় ভারত-বাংলাদেশ পানিসম্পদ স’চিব পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here