ছে’লের বিয়ে বলে কথা! এ কারণে উচ্ছ্বসিত হয়ে আমন্ত্রিতদের ও’পর টাকার বর্ষণ করলেন বাবা। আর সেই টাকা বর্ষণের জন্য ভাড়া করে আনা হয়েছিল হেলিকপ্টার। অ’ভিনবত্ব ও চ’মক আনতে এই পদক্ষেপ নেন বরের বাবা।

পা’কিস্তানের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাতে ভা’রতীয় সংবাদ মাধ্যম জিনিউজ২৪ জানায়, ঘ’টনাটি ঘটেছে পা’কিস্তানের পাঞ্জাবে। বিয়েতে আমন্ত্রিতদের ও’পর নিজে হাতে ১৫ কোটি টাকা ফে’লেছেন ছে’লের বাবা। আ’নন্দে আটখানা বাবার এহেন কা’ণ্ড বিশ্বজুড়ে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। টাকার স’ঙ্গে ছিল গো’লাপের পাপড়ি।

টাকা উড়ানোর মুহূর্তের সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে ভাই’রাল হয়েছে। কেউ কেউ এই ঘ’টনার তীব্র নি’ন্দা করেছেন। কালো টাকার অ’ভিযোগ এনেছেন তারা। তবে মজা করে একাংশ এ হেন বিয়ে বাড়িতে খেতে যাওয়ার ই’চ্ছাও প্রকাশ করেছেন।

জানা যায়, হরিয়ানা থেকে পা’কিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের মাণ্ডি বাহুউদ্দীন বিয়ে করতে গিয়েছিলেন বর। টাকা ওড়ানোর জন্য হেলিকপ্টার ভাড়া করেন তারা।

আইজিপি বলেন, ২১ মার্চ থেকে বাংলাদেশ পু’লিশের উদ্যোগে মাস্ক পরা উদ্বুদ্ধকরণ কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। পু’লিশের এই কার্যক্রমের স্লোগান- ‘মাস্ক পরা অভ্যেস,

কোভিড মুক্ত বাংলাদেশ। দেশবাসীকে অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ক’রোনার যে স্বাস্থ্যবিধি রয়েছে সেগুলো অবশ্যই মানতে হবে। বাইরে গেলে মাস্ক পরতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি ক’ঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। পু’লিশ জনগণের স’ঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঝুঁ’কি

নিয়ে কাজ করেছে। পু’লিশ সদস্যরা ম’রদে’হ সৎকার করেছে। খাবার বিতরণ করেছে। এ পর্যন্ত পু’লিশের ৮৭ জন সদস্য ক’রোনায় মৃ’ত্যুবরণ করেছে। আ’ক্রান্ত হয়েছে ২০ হাজারের অধিক সদস্য।

ক’রোনার দ্বিতীয় ধাপ মো’কাবিলায় দেশব্যাপী পু’লিশের উদ্যোগ ক’রোনাভা’ইরাসে প্রতিরোধে বাংলাদেশ পু’লিশের নির্দেশিকা (এসওপি) বিতরণ, পু’লিশের লোগো সম্বলিত ফ্রি মাস্ক বিতরণ,

ক’রোনা ভ্যাকসিন গ্রহণে উদ্বুদ্ধকরণ; সচেতনতামূ’লক মাইকিং, লিফলেট ও পোস্টার বিতরণ, সামাজিক ও শা’রীরিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণে ভূমিকা রাখা;

ক’রোনায় মৃ’ত্যুবরণকারীদের দাফন, পু’লিশের অব্যবহৃত স্থাপনা আইসোলেশন ও কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রূপান্তর। ইমিগ্রেশন পু’লিশের মাধ্যমে বিদেশ থেকে আগত ব্যক্তিদের শনাক্তকরণ ও কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ, জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এর মাধ্যমে ক’রোনা সংক্রান্ত আগত কলের সাড়াদান,

পু’লিশ হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করে কোভিড পরীক্ষা ও চিকিৎসা প্রদান, পু’লিশ হাসপাতালে পু’লিশ ব্যতীত অন্যান্য স’রকারি প্রতিষ্ঠান ও মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের চিকিৎসা সেবা প্রদান।

বেনজীর আহমেদ বলেন, যেকোনও সভা-সমাবেশ পরিহার করা গেলে ভালো। তবে যদি করতেই হয় তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে করতে হবে। বঙ্গববন্ধুর জ’ন্মশতবার্ষিকীতে অতিথি ছিল মাত্র ৫০০জন।

সেখানে ক’ঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়েছে। আইজিপি আরও বলেন, যেকোনও মূ’ল্যে মাস্ক বিহীন বে’পরোয়া চলাফেরা নি’য়ন্ত্রণ করতে হবে। এটা না করতে পারলে অবস্থা অনাকাঙিক্ষ’ত পরিস্থিতির দিকে মোড় নিতে পারে; যা কাম্য নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here