পাস ক’রতে চাও? তাহলে অ’বসরে আমা’র বাসায় এসো।’ এভাবেই ছা’ত্রদের নিজে’র বা’ড়িতে ডেকে নিতেন এক স্কুল শি’ক্ষিকা। যে ছাত্র বা’সায় যেতে রাজি হন না, তাকে ফেল ক’রিয়ে দিতেন তিনি।

ঘ’টনা’টি ঘ’টেছে ক’লম্বিয়ায়। খবর ডেইলি মেইল। ব্রি’টিশ সংবা’দমাধ্যমটির প্র’তিবেদনে বলা হয়, ওই শি’ক্ষিকার নাম ইওকাসতা। ব’য়স চ’ল্লিশেরও বেশি। ওই শি’ক্ষিকা শুধু পাস ক’রানোর জন্যই নয়, ভালো

ফ’লাফলের লো,ভ দেখিয়েও ছা’ত্রদের বাড়িতে ডেকে নি’তেন। রাজি না হলে ফে’ল করিয়ে দে’য়ার ভ’য় দে’খাতেন তিনি।

শুধু তাই নয়, ছেলেদের হ’টসঅ্যাপ অ্যা’কাউন্টে গ’ভীর রাতে ওই শি’ক্ষিকা যেসব ছবি পা’ঠাতেন তা অবশ্য বর্ণনার যোগ্য নয়। শিক্ষিকার এই অনাচার এক ছাত্রের মাধ্যমে প্র’কাশ পায়। ঘ’টনা প্র’কাশের পর

সবার মুখে এখন তা’দের কথাই ঘো’রাঘুরি করছে। এলাকার মা’নুষদের কথা শুনে জা’না যায় যে স্কুল এবং কলেজে’র এস.এস.সি প’রীক্ষা’র্থী স্কুলছাত্র অর্পন, তার ডাকনাম শুভ।

সে তি’নদিন আগে পা’লি’য়ে যায় তার ক্লাস শিক্ষিকা সু’বর্নার স’ঙ্গে। জা’না যায় তারা পা’লিয়ে গিয়ে বি’য়ে করেছে। ছেলেটি বা’ন্দুরা গ্রামের মঞ্জুর ছেলে আর মে’য়েটি পা’শের হাসানাবাদ গ্রামের মে’য়ে। এ’লাকাবা’সী

জা’নায় মে’য়ে’টির এটা তৃ’তীয় বি’য়ে। বিভিন্ন সময় ওই শি’ক্ষিকা নানা অজুহাতে ওই ছাত্রের বাড়ি যেত। কেউ সেই বি’ষয়ে নজর দে’য়নি কারন তাদের ছা’ত্র শি’ক্ষিকার স’ম্প’র্ক ছিল।

পু’লি’শ ও স্থানিয় সূত্রে পাওয়া খবর অ’নুযায়ী গত সোমবার রাতে প্রে’মের টানে ছা’ত্রের হাত ধ’রে প’লা’তক শি’ক্ষিকা। ছেলেটি অ’প্রা’প্তব’য়স্ক হওয়ায় তার পরি’বারের লোক থা,না,য় অ’ভি’যোগ করে। সেই শি’ক্ষিকা যে

তার ছা’ত্রকে নিয়ে পা’লাবে তা কখনো ক’ল্পনাও ক’রতে পারেনি কেউ। সেই রা’তেই পু’লি’শ ত’দন্ত শুরু করে দেয়।

তারপর ম’ঙ্গলবার রাতে ঐ শি’ক্ষিকার বাড়ি থেকে উ’দ্ধা’র করা হয় অর্পন এবং তার শি’ক্ষিকাকে। তখনই সেই শি’ক্ষিকাকে তার প’রিবারের কাছে হ’স্তান্তর করা হয়। বু’ধবার স’কালে লিখিত মু’চলেখায় ছাড়া পায়

অর্পন। তবে সুবর্না ও অর্পন পু’লি’শে’র কাছে দাবী করে যে তারা কোর্ট ম্যা’রেজ করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here